Parul

মহানগর ডেস্ক: জুলাই মাসের ১৫ তারিখ পর্যন্ত রাজ্যে করোনা বিধি-নিষেধ জারি থাকবে। বর্তমানে রাজ্যে চলছে আংশিক লকডাউন। কিন্তু সেখানেও কিছু ক্ষেত্রে ছাড় দেওয়া হয়েছে। করোনার দ্বিতীয় ঢেউ রাজ্যে সামাল দিতেই গত দুমাস ধরে রাজ্যে চলছে করোনার বিধি-নিষেধ। তবে বেশ কিছু ক্ষেত্রে শিথিল করা হয়েছে।

ads

কিন্তু নবান্ন সূত্রে জানানো হচ্ছে যে, এখনি পুরোপুরিভাবে বিধিনিষেধ তুলে নেওয়া হবে না। নবান্নের এক আধিকারিকের কথায়, ‘গত দুমাস ধরে দফায় দফায় বিধিনিষেধ বাড়ানো হয়েছে। যার ফলে বর্তমানে করোনার গ্রাফ রাজ্যে নিম্নমুখী। রাজ্য স্বাস্থ্য বুলেটিনে দৈনিক করোনা আক্রান্তের সংখ্যা হাজারের নিচে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের টার্গেট বর্তমানে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব এই সংক্রমনের সংখ্যা আরো কমানোর। তবে ইতিমধ্যেই দরজায় কড়া নাড়ছে থার্ড ওয়েব অর্থাৎ তৃতীয় ঢেউ। তাই এই মুহূর্তেই করোনার বিধি-নিষেধ তুলতে চাইছে না নবান্ন’।

আংশিক লকডাউনে যাত্রীদের সুবিধার জন্য পরিবহনের ক্ষেত্রে ছাড় দেওয়া হয়েছে। অনুমতি দেওয়া হয়েছে বাস-ট্যাক্সি অটো চালানোয়। সেক্ষেত্রেও ৫০ শতাংশ যাত্রী নিয়ে চালাতে পারবে। কিন্তু ট্রেন বা মেট্রোর ক্ষেত্রে এখনো অনুমতি দেওয়া যায়নি। তবে সে ক্ষেত্রে বিরাট জটিলতার সম্মুখীন হচ্ছে সাধারণ মানুষ। কারণ এখনও পর্যন্ত সমস্ত বাস নামেনি রাস্তায়। অটো পরিষেবাও আগের মত নয়। এছাড়াও ভাড়া বেড়েছে বেশ কিছু ক্ষেত্রে।

সম্প্রতি দক্ষিণ ২৪ পরগনা এবং হাওড়ায় বেশ কিছু জায়গায় স্টাফ স্পেশল ট্রেন অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখিয়েছিলেন নিত্যযাত্রীরা। তাদের দাবি ছিল অবিলম্বে লোকাল ট্রেন চালু করতে হবে। না হলে বিভিন্ন রকম ভাবে সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছে নিত্যযাত্রীরা। এরপরই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সাংবাদিক বৈঠক করে জানিয়ে দিয়েছিলেন যে, ট্রেন ছাড়ার মতো সময় এখনো আসেনি। তাই কিছু ভালোর জন্য মাঝেমাঝে সমস্যার সম্মুখীন হওয়াও ভাল। কিন্তু এখনও প্রশ্ন রয়েছে ১৫ জুলাই এর পর ট্রেন চলবে কিনা!

সে ক্ষেত্রে নবান্ন সূত্রে জানা যাচ্ছে যে, ট্রেন চলা নিয়ে এখনও পর্যন্ত চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়নি রাজ্য সরকার। ট্রেন চলবে কিনা তা বুধবার নবান্নে মুখ্যমন্ত্রী আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠক করে সিদ্ধান্ত নেবেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here