bengali news carona

Highlights

  • চিনে করোনায় মৃত এবং আক্রান্তের সংখ্যা প্রতিদিন লাফিয়ে বাড়ছে
  • সোমবার মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৭৬৫
  • প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের একটি বক্তৃতা ঘিরে বিতর্ক

মহানগর ওয়েবডেস্ক: মৃত্যুমিছিল যেন থামছেই না। রোগ নিয়ন্ত্রণের কোনও লক্ষণই নেই৷ চিনে মৃত এবং আক্রান্তের সংখ্যা প্রতিদিন লাফিয়ে বাড়ছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাও জানিয়েছে, এখনও নিয়ন্ত্রণে আসেনি ভাইরাসের প্রকোপ। সব মিলিয়ে চিনের সঙ্গে গোটা বিশ্বেই উদ্বেগ বাড়ছে। উহানের গণ্ডি ছাড়িয়ে করোনা হানা দিয়েছে হুবেইতেও। শনিবার সকালে সেখানে নতুন করে ১৪৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। রবিবার মৃতের সংখ্যা ছাড়াল ১৬০০। আর সোমবার তা বেড়ে হল ১,৭৬৫।

সঙ্কট তৈরি হয়েছে চিনের স্বাস্থ্যক্ষেত্রে। যে হুবেই প্রদেশে ভাইরাসের থাবা সবচেয়ে বেশি, সেখানে দিন-রাত এক করে কাজ করছেন স্বাস্থ্যকর্মী ও চিকিৎসকরা। মুখোশ, গ্লাভস, পোশাক ও নিরাপদ চশমার সঙ্কট দেখা দিয়েছে। স্বাস্থ্যকর্মীরা জানিয়েছেন, তাঁরা এক বার খাচ্ছেন। কারণ হাসপাতালে বার বার পোশাক, গ্লাভস, মুখোশ খুলে খাওয়া দাওয়ার সময় সংক্রমণ হতে পারে।

এরই মধ্যে চিনের সরকারি সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের একটি বক্তৃতা ঘিরে শুরু হয়েছে চর্চা। যেখানে ইঙ্গিত পাওয়া গিয়েছে, দেশের মানুষকে সচেতন করার ঢের আগেই করোনার ভয়াবহতা সম্পর্কে অবগত ছিলেন প্রেসিডেন্ট। করোনা নিয়ে শুরুতেই মুখ না খোলায় সমালোচনার মুখে পড়তে হয় জিনপিংকে। ৩ ফেব্রুয়ারি প্রেসিডেন্ট যে বক্তৃতা দিয়েছিলেন, শনিবার তা প্রকাশিত হয়েছে কমিউনিস্ট পার্টির জার্নালে।

যেখানে তিনি বলেছেন, ৭ জানুয়ারিই তিনি করোনাভাইরাস ‘প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণের’ নির্দেশ দেন। অথচ এই ভাইরাস নিয়ে দেশের মানুষকে সচেতন করা হয় জানুয়ারির শেষে। সমালোচকদের বক্তব্য, জিনপিংয়ের বক্তৃতার এই অংশ প্রকাশ করে সরকার প্রমাণ করতে চাইছে শুরু থেকেই করোনা রুখতে চেষ্টার ত্রুটি রাখেনি তারা। এমনিতেই করোনা নিয়ে দীর্ঘ সময়ে মুখ না খোলায় প্রেসিডেন্টের আচরণ নিয়ে জনরোষ বাড়ছিল। এবার তা চরমে পৌঁছায়৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here