kolkata bengali news

নিজস্ব প্রতিবেদক, বর্ধমান: অগ্নিদ্বগ্ধ হয়ে মৃত্যু হল দম্পত্তির৷ অল্পের জন্য রক্ষা পেল তাদের আড়াই বছরের পুত্র সন্তান৷ বর্ধমান শহরের শিয়ালডাঙার বিধানপল্লী এলাকায় ঘটনাটি ঘটে মঙ্গলবার। মৃতদের নাম বিভা কংসবণিক এবং বিশ্বজিত কংসবণিক। মৃতা বিভা কংসবণিকের দাদা দিলীপ রাজমল্ল জানিয়েছেন, ২০১৪ সালে বিভার সঙ্গে বিশ্বজিতের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই বিভার ওপর শ্বশুরবাড়ির লোকজন নানা অছিলায় নির্যাতন চালাতে শুরু করে। তাকে মারধর করা, খেতে না দেওয়ার মত ঘটনাও ঘটতে থাকে।

এরপরই সোমবার রাত প্রায় দেড়টা নাগাদ বিভা এবং বিশ্বজিতের গায়ে কেরোসিন তেল ঢেলে পুড়িয়ে মারার চেষ্টা করে শ্বশুরবাড়ির লোকজন। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাঁদের উদ্ধার করে বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা বিভাকে মৃত ঘোষণা করেন। মঙ্গলবার সকালে মৃত্যু হয় বিশ্বজিতেরও। এই ঘটনায় দিলীপ রাজমল্ল বর্ধমান থানায় বিভা কংসবণিকের শ্বশুরবাড়ির সদস্যদের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। যদিও এ ব্যাপারে মৃতার জা মধুমিতা কংসবণিক জানান, বিয়ের পর থেকেই বিভা আলাদা থাকার জন্য স্বামীকে চাপ দিত। প্রায়ই তাঁরা ঘর বদল করতেন। সোমবারও তাঁরা ঘর বদল করার জন্য ঘরের জিনিসপত্র বের করেছিলেন। তা নিয়েই স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে অশান্তি শুরু হয়। আর তার জেরেই নিজেরাই গায়ে কেরোসিন তেল ঢেলে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন।

তাঁরা দ্রুত গিয়ে ঘরের মধ্যে থেকে শিশুটিকে নিরাপদে উদ্ধার করেন এবং বিভা এবং বিশ্বজিতকে বর্ধমান হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। এদিকে, এই ঘটনার খবর পেয়ে বিভার বাপের বাড়ির লোকজন বর্ধমান হাসপাতালে এলে বিভার শ্বশুরবাড়ির লোকজনদের সঙ্গে রীতিমত বচসায় জড়িয়ে পড়েন। এমনকি শ্বশুরবাড়িতে গিয়ে তাঁরা হুমকিও দেন বলে অভিযোগ করেছেন মধুমিতা কংসবণিক। বর্ধমান থানা সূত্রে জানা গিয়েছে, এই ঘটনায় অভিযোগ দায়ের হয়েছে। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে বর্ধমান থানার পুলিশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here