নিজস্ব প্রতিবেদক, ব্যারাকপুর: সাংসারিক অশান্তির জেরে ঝগড়া করতে করতেই চলন্ত ট্রেন থেকে বিপরীতমুখী ওপর এক চলন্ত ট্রেনের সামনে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করল এক দম্পতি। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর ২৪ পরগনা জেলার ব্যারাকপুর মহকুমার টিটাগড় ও খড়দা রেল স্টেশনের মাঝে। গুরুতর জখম অবস্থায় তাদের ব্যারাকপুর বিএন বোস মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে আসা হলেও তাদের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় দুজনকেই স্থানান্তরিত করা হয় কলকাতার আরজিকর হাসপাতালে। জখম ওই দম্পতির নাম মইনউদ্দিন আনসারি এবং আফসানা বিবি। ওই দম্পতি গত দুমাস ধরে আলাদা থাকেন বলে জানা গিয়েছে। ওই দম্পতির মধ্যে বনিবনা না হওয়ায় ডিভোর্সের মামলাও চলছিল বলে জানা গেছে।

সোমবার সকালে আফসানা বিবি তার বাপের বাড়ি টিটাগড় চেকপোস্ট থেকে টিটাগড় রেল স্টেশনে এসেছিল ট্রেন ধরে অন্যান্য দিনের মতই কলকাতায় কর্মস্থলে যাবে বলে। হঠাৎ টিটাগড় রেল স্টেশনে স্ত্রীর সঙ্গে দেখা করতে হাজির হন তার স্বামী মইনউদ্দিন। সেখানে ওই দম্পতির মধ্যে বেশ কিছুক্ষন প্রকাশ্যেই বচসা চলে। ডাউন শিয়ালদা লোকাল দুই নম্বর লাইনে আসলে কর্মস্থলে যাওয়ার জন্য ওই ট্রেনে উঠে যায় আফসানা। সেই সময় ওই একই কামরায় ওঠে আফসানার স্বামী মইনউদ্দিনও। ট্রেনের মধ্যেও দুজনের বচসা চলতে থাকে। সেই সময় ১ নম্বর আপ লাইনে একটি আপ ট্রেন আসলে স্ত্রীর হাত ধরে ওই ট্রেনের সামনে ঝাঁপ দেন মইনউদ্দিন। দুজনেই গুরুতর জখম হন ।

ভিড়ে ঠাসা ট্রেনের নিত্য যাত্রীরা এই ঘটনা দেখে হতচকিত হয়ে যান। তারাই খড়দা প্লাটফর্মে ট্রেন দাঁড়ালে রেল পুলিশকে বিষয়টি জানায়। রেল পুলিশ খড়দা ও টিটাগড় রেল স্টেশনের মাঝখান থেকে স্বামী-স্ত্রী দুজনকেই আশংকাজনক অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে বারাকপুর বিএন বসু মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে দুজনের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় ওই দম্পতিকে কলকাতার আরজিকর হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। দুজনেই এখন মৃত্যুর সঙ্গে কার্যত লড়াই করছেন। দুটি পা কাটা গেছে স্বামী মইনউদ্দিন আনসারী। মাথায় গুরুতর চোট লেগেছে আফসানা বিবির। টিটাগড় রেল পুলিশ গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here