news national

মহানগর ওয়েবডেস্ক: ভারতের প্রথম করোনা ভ্যাকসিন ক্যান্ডিডেট কোভ্যাক্সিনের দ্বিতীয় পর্যায়ের ট্রায়ালের জন্য বেছে নেওয়া হল গুয়াহাটি মেডিক্যাল কলেজকে। সম্প্রতি এমনটাই জানিয়েছেন অসমের স্বাস্থ্যমন্ত্রী হেমন্ত বিশ্ব শর্মা। এই ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের জন্য ওই মেডিক্যাল কলেজ ও অসম সরকারের পক্ষ থেকে সমস্ত রকম সাহায্য করা হবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন তিনি।

হেমন্ত বিশ্ব শর্মার দাবি, মঙ্গলবার রাত পর্যন্ত অসমে ১৮.২২ লক্ষ টেস্ট করা হয়েছে। তাতে রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে ৭৯,৬৬৭ জনের। যদিও ৫৬,৭৩৪ জন ইতিমধ্যেই সুস্থ হয়ে উঠেছেন। রাজ্যে রিকভারি রেট ৭১.২ শতাংশ ও মর্টালিটি রেট ০.২৫ শতাংশ। রাজ্যে এখনও প্রাণ হারিয়েছেন ১৯৭ জন।

ভারতের প্রথম নিজস্ব করোনা ভাইরাসের সম্ভাব্য ভ্যাকসিন ‘কোভ্যাক্সিন’ যৌথ ভাবে তৈরি করে ভারত বায়োটেক ও আইসিএমআর। গত মাসে সেই কোভ্যাক্সিনের প্রথম পর্যায়ের হিউম্যান ট্রায়াল শুরু হয়। সেই ট্রায়ালে প্রাথমিক ভাবে কোভ্যাক্সিন সুরক্ষিত বলেই প্রমাণিত হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ২৪ জুলাই দিল্লি এইমসে এই ভ্যাকসিনের হিউম্যান ট্রায়াল শুরু হয়। করোনার ভ্যাকসিনের হিউম্যান ট্রায়ালের জন্য প্রচুর আবেদনপত্র এসেছিল। প্রাথমিকভাবে দাবি করা হয়েছিল, ১৫ আগস্ট এই ভ্যাকসিনের আত্মপ্রকাশ ঘটবে। যা নিয়ে একাধিক বিতর্কের পর তাতে জল পড়ে যায়। সূত্রের খবর, প্রথম পর্যায়ে এই ভ্যাকসিন ৩৭৫ জন স্বেচ্ছাসেবকের উপর চালানো হচ্ছে। এইমস সহ আরও দুই তিন জায়গায় এই পরীক্ষা চলছে। আগস্ট মাসে শেষেই প্রথম পর্যায়ের পরীক্ষার ফলাফল জানা যাবে। এরপরের ধাপে পরীক্ষা চালানো হবে আরও ৭৫০ জনকে নিয়ে। ভারতের প্রায় ১২টি জায়গায় এই পরীক্ষা চালানো হবে। প্রথম পর্যায়ে ১৮ থেকে ৫৫ বছরের মধ্যে কেবল সুস্থ ব্যক্তিদের উপর এই পরীক্ষা চলবে। দ্বিতীয় পর্যায়ে ১২ থেকে ৬৫ বছর পর্যন্ত চলবে পরীক্ষা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here