kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি: কেন্দ্রীয় সরকারের কৃষিবিলের প্রতিবাদে আজ দেশজুড়ে গ্রামীণ ভারত বনধের ডাক দেওয়া হয় বামেদের তরফে। সকাল থেকেই দিকে দিকে শুরু হয়ে যায় কমসূচি। এদিন সকালে কৃষক সংগ্রাম পরিষদের পক্ষ থেকে পূর্ব মেদিনীপুরের একাধিক জায়গায় অবরোধ করা হয়। বাদ ছিল না নন্দীগ্রাম। কেন্দ্রের এই বিলের বিরুদ্ধে থাকা তৃণমূল বামেদের এই আন্দোলনে কোন ভূমিকা নেই সেদিকে নজর ছিল সবার। দেখা গিয়েছে, বামেদের এই আন্দোলন প্রতিহত করতে কোথাও প্রশাসনকে তেমন বলপ্রয়োগ করতে হয়নি। নন্দীগ্রামে অবরোধ হলেও পুলিশ কোনও সক্রিয় ভূমিকা নেয়নি সেই অবরোধ তোলার জন্য।

অন্যদিকে, কোলাঘাট থানার দেউলিয়া বাজারে ৬ নম্বর জাতীয় সড়ক আধ ঘণ্টা পথঅবরোধ করা হয়। এদিন কৃষক সংগ্রাম পরিষদের পক্ষ থেকে কেন্দ্র সরকারের কৃষিবিলের বিরোধিতা করে কৃষিবিলের প্রতিলিপিতে আগুন দিয়ে পোড়ানো হয়। এছাড়া কেন্দ্রীয় কৃষিমন্ত্রী নরেন্দ্র সিং তোমর-এর কুশপুতুল পোড়ানো হয়। এদিনের এই অবরোধে যানজটের সৃষ্টি হয়। পরে কোলাঘাট থানার পুলিশ এসে অবরোধকারীদের হঠিয়ে দেয়।

অন্যদিকে, কেন্দ্রীয় সরকারের জনবিরোধী কৃষক বিলের প্রতিবাদে ও অবিলম্বে প্রত্যাহারের দাবিতে শুক্রবার বেলা ১১টা নাগাদ নবদ্বীপ থানার কানাইনগর বটতলা নবদ্বীপ কৃষ্ণনগর রাজ্য সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখালেন সিপিএম কর্মীরা। পরে সাড়ে এগারোটা  নাগাদ অবরোধ উঠে গেলে নবদ্বীপ থানার পুলিশের হস্তক্ষেপে রাজ্য সড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।

কৃষি বিলের প্রতিবাদে বামেদের বিক্ষোভ জারি ছিল শান্তিপুরেও। কৃষক সভা খেতমজুর ইউনিয়নসহ সিপিএমের একাধিক শাখা সংগঠনের ডাকে শান্তিপুর ঘোড়ালিয়া বাইপাসে ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখায় শান্তিপুর সিপিএম এরিয়া কমিটি। বিক্ষোভের জেরে দীর্ঘক্ষণ অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়ক। অবরোধ চলাকালীন কৃষক বিলে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেন সিপিএম কর্মীরা। পরে ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছয় শান্তিপুর থানার পুলিশ। বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে আলোচনা করে পুলিশ অবরোধমুক্ত করে জাতীয় সড়ক।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here