kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক : এলআইসি ও আইডিবিআই ব্যাংকের বিলগ্নিকরণের প্রতিবাদে রাজ্যের মানুষকে রাস্তায় নামে বিক্ষোভের ডাক দিল সিপিএম তথা বামপন্থী সংগঠন গুলি।সাংবাদিক সম্মেলন করে একথা স্পষ্ট করলেন সিপিএমের পলিটব্যুরোর সদস্য মহম্মদ সেলিম।বাজেটের সময় অর্থমন্ত্রীর এই সিদ্ধান্তের সমালোচনা করে সেলিম বলেন, ‘অর্থমন্ত্রী বলেছেন, আমি আশ্বস্ত করছি মানুষের ব্যাঙ্কে রাখা টাকা নিয়ে কোনও চিন্তা নেই। কিন্তু ১ লক্ষ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৫ লক্ষ টাকা করার মানে ব্যাঙ্ক উঠে যাওয়ার সম্ভবনাটাকে আরও বাড়িয়ে দেওয়া হল৷’ এই সংকটময় সম্ভবনাকে সফল না করতে দেওয়ার জন্য রাজ্যবাসীর কাছে এর বিরুদ্ধে রাস্তায় নেমে প্রতিবাদের আর্জি জানান মহম্মদ সেলিম।একইসঙ্গে ৪ ফেব্রুয়ারি সারা দেশ জুড়ে রাস্তায় নেমে এই বিলগ্নিকরণের প্রতিবাদ করা হবে বলেই জানান সীতারামন ইয়েচুরি।

এদিন বাজেট প্রসঙ্গে মন্তব্য করতে গিয়ে সেলিম বলেন, ‘দিশাহীন এই বাজেট শুনে হতাশ সাধারণ মানুষ। বাজেট ভাষণে একই কথা বার বার বলেছেন নির্মলা সীতারামন। বাজেটে অ্যাসপিরেশন ইন্ডিয়া বলে তিনি যা বললেন, তাতেই কিছুই বাড়েনি। স্বাধীনতার পর এটা সবচেয়ে দীর্ঘ সময়ের বক্তৃতা। অর্থমন্ত্রী নিজেও শেষের দিকে আর ধৈর্য রাখতে পারেননি। বাজেট ভাষণে তিনি আবার কিছু কবিতা বলার চেষ্টা করেন। যাতে মূল বাজেট হারিয়ে যায়। এই বাজেটে উপরতলার ১০০ কোম্পানির লাভ ছাড়া আর কিছুই নেই।বাজেটে ব্যাঙ্কে জমা টাকার উপর বিমার পরিমাণ ১ লক্ষ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৫ লক্ষ টাকা করা হয়েছে৷ অর্থমন্ত্রী বলেছেন, আমি আশ্বস্ত করছি মানুষের ব্যাঙ্কে রাখা টাকা নিয়ে কোনও চিন্তা নেই। সেলিম বলেন, ১ লক্ষ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৫ লক্ষ টাকা করার মানে ব্যাঙ্ক উঠে যাওয়ার সম্ভবনাটাকে আরও বাড়িয়ে দেওয়া হল৷’

এদিকে এই বিষয়ে মন্তব্য করতে গিয়ে সীতারামন ইয়েচুরি বলেন, দেশের একটা বিরাট সংখ্যক মানুষ এলআইসির সঙ্গে যুক্ত আছে। এই অবস্থায় এলআইসির বিলগ্নিকরণের কথা ঘোষণা করেছেন অর্থমন্ত্রী। কিন্তু এই সিদ্ধান্ত বাস্তবে পরিণত হলে সাধারণ মানুষ অসুবিধায় পড়বে। ব্যাঙ্কে টাকা জমা রাখা আরও ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে যাবে। ফলে এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে আগামী ৪ ফেব্রুয়ারি সারা দেশ জুড়ে পথে নামবে বামেরা।

অন্যদিকে এদিন বাজেট প্রসঙ্গে মন্তব্য করতে গিয়ে অর্থমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে কটাক্ষ করেন মহম্মদ সেলিম। তিনি বলেন, ‘স্বাধীনতার পর এত লম্বা ভাষণ, তাও অসম্পূর্ণ থেকে গেল৷ আর্থিক বৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা ছুঁতে পারেনি মোদী সরকার। অর্থনীতি ধুঁকছে। তা স্বীকার করছেন না কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী। মেক ইন ইন্ডিয়া এখন বিশবাঁও জলে। তার উপর এবার এলআইসিরও বিলগ্নিকরণের পথে হাঁটছে সরকার। ৩৮ কোটি মানুষের জীবন জড়িয়ে এলআইসির সঙ্গে। এখন সরকার জীবন বিমা নিগমের শেয়ার বাজারে ছাড়ার সিদ্ধান্তের ফলে আতঙ্ক ছড়িয়েছে মানুষের মনে। সরকারের কোনও নৈতিক অধিকার নেই এটা বেচে দেওয়ার।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here