ডেস্ক: ভোটের দিন রাজ্যজুড়ে সন্ত্রাসের আশঙ্কা প্রকাশ করেছিল মহামান্য হাইকোর্ট। কিন্তু ১৪ মে আগের দিনই যে সন্ত্রাসের ছবি দেখা যাবে তা আন্দাজ করা যায়নি। দক্ষিণ ২৪ পরগনার কাকদ্বীপের নামখানা ব্লকের বুধাখালি গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার এক সিপিএম কর্মী ও তাঁর স্ত্রী’কে আগুনে জীবন্ত জ্বালিয়ে দেওয়া হল। এই মর্মান্তিক ঘটনায় অভিযোগ উঠেছে শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে। যদিও ঘাসফুল শিবিরের পক্ষ থেকে সমস্ত অভিযোগ খারিজ করে দেওয়া হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে খবর, মৃত সিপিএম কর্মী ও তাঁর স্ত্রী’র নাম দেবু দাস ও উষা দাস যখন নিশ্চিত মনে ঘুমাচ্ছিলেন তখনই এই অগ্নি সংযোগের ঘটনা ঘটানো হয়। বিরোধীদের তরফে দাবি করা হয়েছে, রাত ১১টার পর সকলে যখন ঘুমাচ্ছিলেন তখনই গ্রামে ঢুকে তাণ্ডব শুরু করে তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা। এরপরই ঘুমন্ত অবস্থায় ওই সিপিএম কর্মী দম্পতিরদের ঘরে আগুন লাগিয়ে দেয় তারা। মৃত দেবু দাসের ছেলে জানায়, সিপিএম ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দেওয়ার জন্য অনেকদিন ধরেই চাপ দেওয়া হচ্ছিল বাবাকে। এমন কী খুনের হুমকিও দেওয়া হয় একাধিকবার।

অন্যদিকে, এই ঘটনার পরই ওই দম্পতির দগ্ধ মৃতদেহ আটকে বিক্ষোভ দেখানো শুরু করেছেন বাম কর্মীরা। কাকদ্বীপ থানার পুলিশও ঘটনাস্থলে পৌঁছে তদন্তের কাজে নেমেছে।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here