kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: রাষ্ট্রসংঘের মঞ্চে সম্প্রতি নতুন ভারতের উন্নয়নের স্বপ্ন ফেরি করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। কিন্তু পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান কাশ্মীর নিয়ে একইভাবে ভারতকে কোণঠাসা করার চেষ্টা চালিয়ে গেছেন। পরিণাম, কাশ্মীরের কিছু অংশে উত্তেজনা তৈরি হয়। আজ সকালে পুলিশ ঘোষণা করে, শ্রীনগরের কিছু জায়গায় নতুন করে কড়াকড়ি আরোপিত হয়েছে। এমনকী বেশ কিছু জায়গায় ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা বাতিল করার পর এখানে কার্ফু এবং ১৪৪ ধারা জারি হয়। ধীরে ধীরে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে তা তুলে নেওয়া হয়।

পাক প্রধানমন্ত্রীর রাষ্ট্রসংঘের মঞ্চে বক্তৃতার পর বেশ কিছু জায়গায় স্থানীয় জনতা প্রতিবাদ দেখায়। অনেকে রাস্তায় নেমে স্লোগান দিতে থাকেন। প্রশাসন কোনও রকম ঝুঁকি নেয়নি। দ্রুত কড়াকড়ি আরোপ করা হয়। লালচকের দোকানদার ফৈয়াদ আহমেদ বলেন, পুলিশ আমাকে দোকান খুলতে নিষেধ করে। কারণ নতুন করে কড়াকড়ি আরোপ করা হয়েছে। বিভিন্ন জায়গা ব্য়ারিকেড করা হয়েছে। অনেক লেন সিল করে দেওয়া হয়েছে। গাড়ি চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।

নওয়াকদলের গ্রেনেড হামলার খবর পাওয়া যায়। উত্তর শ্রীনগরের এসপি সাজাদ শাহ বলেন, টিয়ার গ্য়াসের শ্য়েল ফেটে থাকতে পারে। আসলে কী হয়েছে, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। নরেন্দ্র মোদী সরকার দ্বিতীয়বার ক্ষমতায় আসার পর কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা বাতিল করে। ফলে উপত্য়কা বিশেষ মর্যাদা হারায়। সেইসঙ্গে কাশ্মীর পুনর্গঠন বিল আইনে পরিণত করা হয়। ফলে জম্মু কাশ্মীর ও লাদাখ ২টি পৃথক কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে পরিণত হয়। এরপর পাকিস্তান তেড়েফুঁড়ে উঠেছে। নানাভাবে আন্তর্জাতিক মঞ্চে ইমরান খান ভারতকে কোণঠাসা করার চেষ্টা করেন। সম্প্রতি সেই চেষ্টা জারি থাকে রাষ্ট্রসংঘের সাধারণ পরিষদের সভায়। এর জের এসে পড়ে উপত্য়কায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here