ডেস্ক: শহরে অটো দৌরাত্ব্যের কথা কারোরই অজানা নয়। কিন্তু মাঝে মধ্যে সেই দৌরাত্ব্যের সীমা এতটাই ছাড়িয়ে যায় যে বিক্ষোভে নেমে আসতে হয় সাধারণ মানুষকেই। এমনটাই ঘটল এদিন সকালে উল্টোডাঙ্গায়। ঘণ্টার পর ঘণ্টা লাইনে দাঁড়িয়ে থেকেই অটো না পাওয়ার অভিযোগ তো আছেই। এবার অটোচালকদের ভাড়ার দাবি এতটাই বেড়েছে যে আর কোনও উপায় পাচ্ছেন না সাধারণ জনগণ।

নিত্যযাত্রীদের অভিযোগ, দিনের পর দিন ক্রমশ বেড়েই চলেছে ভাড়ার দাবি। উল্টোডাঙ্গা থেকে সেক্টর ৫ পর্যন্ত যাত্রীপিছু ভাড়া ৫০, ১০০ টাকার মতো ছিলই। এদিন নাকি ২০০, ৩০০ এমনকি ৪০০ টাকাও দাবি করে বসেন বেশ কিছু অটোচালক। আর তখনই ধৈর্য্যের বাঁধ ভাঙে জনতার। অটো দৌরাত্ম্যের প্রতিবাদে উল্টোডাঙা স্টেশন রোডে এদিন অবরোধে করেন নিত্যযাত্রীরা। এই অবরোধের জেরে এদিন সকাল ৯.‌৩০টা থেকে বাইপাস পর্যন্ত ও খান্না মোড় পর্যন্ত তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়।

উল্টোডাঙ্গা থেকে সেক্টর ৫-এর দূরত্ব ৫ কিলোমিটারের মতো। কিন্তু এই দূরত্ব যেতেই ৪০০ টাকা ভাড়া শুনে আকাশ থেকে পড়ার জোগাড় হয় যাত্রীদের। পুলিশের কাছে নালিশ জানিয়েও কোনও লাভ হয়নি বলে অভিযোগ করেন সকলে। শহরের বিভিন্ন রুটে অটো ভাড়া নির্ধারিত করা থাকলেও, সল্টলেকই এমন একটি এলাকা যেখানে অটোর নির্ধারিত কোনও ভাড়া নেই। অন্যদিকে, মেট্রো পরিষেবা চালু না হওয়ার কারণে অটোই একমাত্র ভরসা নিত্যযাত্রীদের। বিশেষত তাদের জন্য, যারা সামান্য বেশী অর্থের বিনিময়ে বাসের বাদুড় ঝোলা এড়িয়ে থাকতে চান। কিন্তু এই সামান্য অর্থই এখন এতটা বেড়ে গিয়েছে যে নাভিশ্বাস উঠে রাস্তায় নেমে আসতে হচ্ছে নিত্যযাত্রীদের।