ডেস্ক: ছেলে ভিনধর্মে বিয়ে করেছে এই অপরাধে বাবাকে পঞ্চায়েতে ডেকে মারধর করার পাশাপাশি নিজের থুতু খেতে বাধ্য করা হল। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তরপ্রদেশের বুলন্দশহরের সোনদা হাবিবপুর গ্রামে। দলিত সম্প্রদায়ভুক্ত ওই নিগৃহীতর নাম শ্রীকৃষ্ণ(৪৪)। এই ঘটনায় দেশজুড়ে নিন্দার ঝড় উঠেছে।

জানা গেছে, মুসলিম মেয়েকে বিয়ে করার অপরাধে গ্রামের তথাকথিত মাতব্বররা শ্রীকৃষ্ণ নামের ওই ব্যক্তির গায়ে থুতু ছিটিয়ে অমানবিকভাবে মারধর করে এবং স্ত্রী ও কন্যাকে নগ্ন করে গ্রামে ঘোরানোর হুমকিও দেয় বলে অভিযোগ। এরপর মাটিতে ওই ব্যক্তিকে থুতু ফেলতে বলে সেই থুতু চাটতেও বাধ্যও করা হয় তাঁকে। এরপরে তিনি থানার দ্বারস্থ হলে প্রথমে অভিযোগ নিতে অস্বীকার করে স্থানীয় থানা। কিন্তু পরে পাঁচজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়। ভিন ধর্মে বিয়ে করায় ওই ব্যক্তির পুত্রবধূর পরিবারের তরফে তাঁর পরিবারের নামে থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়। কিন্তু আদালত সেই মামলা খারিজ করে দেয়। প্রাপ্তবয়স্ক দুই ব্যক্তিকে একসঙ্গে থাকার অনুমতিও দেওয়া হয়। রাজিয়া আদালতে জানায় যে সে তাঁর স্বামী শিবকুমারের সঙ্গে শ্বশুরবাড়িতেই থাকতে চায়। কিন্তু তাঁদের নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে শ্রীকৃষ্ণ তাঁর ছেলে শিবকুমার এবং পুত্রবধূ রাজিয়াকে গ্রাম ছেড়ে চলে যেতে বলেন। এরপরেই পঞ্চায়েতে নালিশ করে রাজিয়ার পরিবার। কিন্তু তারা বিবাদ মিটিয়ে নিতে চান এই বলে শ্রীকৃষ্ণকে পঞ্চায়তের সালিশি সভায় তাকে ডাকা হয়। কিন্তু সভায় যাওয়ার পর তাকে চূড়ান্ত হেনস্থার মুখে পড়তে হয়। ঘটনার অভিযোগ পাওয়ার পরেই জেলার পুলিশ সুপার আশ্বাস দিয়েছেন এই ঘটনায় যুক্ত দোষী ব্যক্তিদের উপযুক্ত শাস্তি দেওয়া হবে

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here