ডেস্ক: ১৭ শতকে প্রতিষ্ঠিত ভারত ইতিহাসের স্বারক শাজাহানের তৈরি লালকেল্লার অভিভাবকত্ব পেল ডালমিয়া ভারত গ্রুপ। মোদী সরকারের ‘‌অ্যাডপ্ট আ হেরিটেজ’ প্রল্পের মাধ্যমে একাধিক প্রতিদ্বন্দ্বীকে পিছনে ফেলে ৫ বছরের জন্য লালকেল্লার যাবতীয় দ্বায়িত্ব গ্রহণ করল ডালমিয়া ভারত গ্রুপ। এখন থেকে এই কেল্লা রক্ষনাবেক্ষনের সমস্ত দায়িত্ব থাকবে তাঁদের উপর।

গত বছরই ‘‌অ্যাডপ্ট আ হেরিটেজ’ প্রকল্পের ঘোষণা করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এখানে দেশের ১০০ টি স্বারকের নাম উল্লেখ করা হয়। যার মধ্যে রয়েছে তাজমহল, হিমাচল প্রদেশের কাংড়া ফোর্ট, অরুণাচল প্রদেশের তিমবাং, হরিদ্বারের সতীঘাট, কোনারকের সূর্যমন্দিরের মতো দর্শনীয় স্থানগুলি। এদিন ইন্ডিগো এয়ারলাইন্স এবং জিএমআর গ্রুপের মতো সংস্থাগুলির সঙ্গে নিলামের দীর্ঘ লড়াইয়ের পর ২৫ কোটি টাকার বিনিময়ে লালকেল্লার বরাত পায় ডালমিয়া গ্রুপ। তবে শুধু অভিভাবক হলেই চলবে না একজন অভিভাবকের সমস্ত দায়িত্বও পালন করতে হবে ডালমিয়া গোষ্ঠীকে। আর এরজন্য একটি চুক্তিও সম্পন্ন হয়েছে ভারত সরকারের সঙ্গে এই সংস্থার।

পর্যটন ও সংস্কৃতি মন্ত্রক এবং আর্কিয়োলজিক্যাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়ার সঙ্গে ডালমিয়া গ্রুপের চুক্তি অনুযায়ী, আগামী ৬ মাসের মধ্যে পর্যটকদের জন্য সমস্ত সুবিধার ব্যবস্থা করতে হবে এই সংস্থাকে। তার মধ্যে রয়েছে জল ও বসার ব্যবস্থা। তবে এগুলি প্রাথমিক, ডালমিয়া গ্রুপের লক্ষ্য আসন্ন ১৫ আগস্ট লালকেল্লায় জাতির উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রীর ভাসনের আগেই ঢেলে সাজানো হবে লালকেল্লাকে। চুক্তি অনুযায়ী সেই তালিকায় দৃষ্টিহীনদের সুবিধের জন্য তৈরি করা হবে বিশেষ ধরনের মেঝে, রাত্রিতে থাকবে লাইট শো, সৌধের বিভিন্ন জায়গায় লেখা হবে লালকেল্লার ইতিহাস, প্রতিদিন থাকবে গানের অনুষ্ঠান। আগামী এক বছরের মধ্যে লালকেল্লা–‌চত্বরে শৌচাগারের উন্নতি, পর্যটকদের ঘুরে দেখার সুবিধের জন্য কেল্লার বিভিন্ন অংশের ম্যাপ, কেল্লা–‌চত্বরে আলোকসজ্জা, অনুসন্ধান কেন্দ্র, ব্যাটারিচালিত গাড়ি, কফি শপ তৈরি করতে হবে ডালমিয়া গ্রুপকে। একইসঙ্গে এই ৫ বছর ধরে নিজেদের বিজ্ঞাপ্নের ব্যানারও লাগাতে পারবে ডালমিয়া গোষ্ঠী। একইসঙ্গে এই সমস্ত সুবিধা দেওয়ার বিনিময়ে পর্যটকদের থেকে অতিরিক্ত অর্থও আদায় করতে পারবে এই সংস্থা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here