sensex hit bengali news

Highlights

  • বৃহস্পতিবার চাঙ্গা শেয়ার বাজার
  • সর্বকালীন রেকর্ড গড়ল সেনসেক্স
  • আমেরিকা-চিন বাণিজ্য চুক্তির পরই চাঙ্গা শেয়ার বাজার

মহানগর ওয়েবডেস্ক: আমেরিকা ও চিন তাদের প্রথম বাণিজ্য যুক্তি করার পরেই দিনই শেয়ার বাজার চাঙ্গা। বৃহস্পতিবার বাজার খুলতেই ইতিবাচক ভঙ্গিতেই সর্বকালীন রেকর্ড স্পর্শ করল বাজার সূচক সেনসেক্স। ১৩৭.২১ পয়েন্ট লাফিয়ে সর্বোচ্চ ৪২ হাজারের বেঞ্চমার্ক ছুঁয়ে ফেলল সেনসেক্স। স্বাভাবিকভাবেই শেয়ারবাজারের এই চিত্র বিনিয়োগকারী ও শেয়ার হোল্ডারদের স্বস্তি দিল।

আরও পড়ুন: রেলের টিকিটে ফিরল বাংলা, আন্দোলনে সাফল্যের দাবি

এস এন্ড পি ও বম্বে স্টক এক্সচেঞ্জে সেনসেক্স সূচক ১৩৭.২১ পয়েন্ট বেড়ে ৪২ হাজার৬ দশমিক ৩৮ দাঁড়িয়েছে। তাও আবার বাজার খোলার কয়েক মিনিটের মধ্যেই। ন্যাশনাল স্টক এক্সচেঞ্জ নিফটি বেঞ্চমার্ক উঠল ১২ হাজার ৩৭৭ দশমিক ৪০। গতকাল বাজার বন্ধের পর থেকে আজ বাজার খোলা পর্যন্ত ৩৪ দশমিক ৫ পয়েন্ট বেড়েছে নিফটি।

বৃহ্স্পতিবার বাজার খুলতেই দেখা যায় বাজারে শীর্ষ লাভবান সান ফার্মা। এই সংস্থার শেয়ার বেড়েছে ১ দশমিক ৩০ শতাংশ। এরপরই রয়েছে নেসলে ইন্ডিয়া, এইচইউএল, কোটক ব্যাংক, আল্ট্রাটেক সিমেন্ট, বাজাজ অটো এবং ভারতী এয়ারটেল।

অন্যদিকে, ইন্ডাসিন্ড ব্যাংক, টাটা স্টিল, এনটিপিসি, টাইটান, মাহিন্দ্রা এন্ড মাহিন্দ্রা, টেক মাহিন্দ্রা, ওএনজিসি এবং এশিয়ান পেইন্টস সেভাবে ব্যবসা করতে পারেনি।

আমেরিকা ও চিন তাদের প্রথম পর্যায়ের বাণিজ্য চুক্তি সই করার পরের দিনই শেয়ার বাজারে এত উত্থান। বিগত একবছর ধরে দুই অন্যতম বড় অর্থনীতির দেশের মধ্যে কঠিন আলোচনার পর অবশেষে একটি সিদ্ধান্তে উপনীত হয়েছে দুই শক্তিশালী অর্থনীতি।

এই চুক্তির ফলে সম্পত্তি সংরক্ষণ এবং প্রয়োগ করা সহজ হবে। দুই দেশের মধ্যে প্রযুক্তি হস্তান্তর করা যাবে। এছাড়াও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বেশ কয়েকটি দিক থেকে লাভবান হবে এই চুক্তির ফলে, মার্কিন কৃষিকাজের একেবারে নাটকীয় প্রসার ঘটবে বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। আমেরিকার আর্থিক পরিষেবাগুলির বাধা অপসারণ সম্ভব হবে। মুদ্রার হেরফের রোধ করা যাবে।

বুধবার ওয়াল স্ট্রিটে বেঞ্চমার্ক রেকর্ড উচ্চতায় শেষ হয়েছিল। আগামি দিনে অশোধিত তেল প্রতি ব্যারেল 0.৬১ শতাংশ বেড়ে ৬৪.৩৯ মার্কিন ডলারে দাঁড়িয়েছে। বৃহস্পতিবার ভারতীয় মুদ্রা রুপিয়াও ইতিবাচক সা়ড়াই দিয়েই খুলল। এর মূল্য মার্কিন ডলারের তুলায় ৫ পয়সা বৃদ্ধি পেয়েছে।

এদিকে, ইন্টারনেট ভিত্তিক বিদেশি বিনিয়োগকারী সংস্থাগুলি ২৭৯.৫৩ কোটি টাকার ইক্যুইটি শেয়ার কিনেছে, আর দেশীয় বিনিয়োগকারী সংস্থাগুলি ৬৪৮.৩৪ টাকার শেয়ার বিক্রি করেছে। বুধবারের স্টক এক্সচেঞ্জের চিত্রটা অনেকটা এমনই।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here