খেলোয়াড়দের শাস্তি! আইএফএ-র অতিসক্রিয়তায় অন্য ‘বড়’ দলের হাত দেখছেন দেবব্রত 

0
213
kolkata bengali news

সায়ন মজুমদার: বুধবার সন্ধ্যাবেলায় হঠাৎ করেই রেফারি নিগ্রহের ঘটনায় ইস্টবেঙ্গলের দুই ফুটবলার ডিডিকা, মেহতাব, গোলকিপার কোচ অভ্র মন্ডল ও ম্যানেজার দেবরাজ চৌধুরীকে শাস্তি দিয়েছে আইএফএ। দুই ফুটবলারকে এক ম্যাচ করে নির্বাসিত ও আর্থিক জরিমানা করেছে বঙ্গীয় ফুটবল সংস্থা। অন্যদিকে অভ্র ও দেবরাজকে এক বছরের জন্য নির্বাসিত করা হয়েছে। আর এই ঘটনা নিয়েই ক্ষুব্ধ ইস্টবেঙ্গল কর্তা দেবব্রত সরকার। আর তাই শাস্তি বিরুদ্ধে আজই আইএফএর গভর্নিং বডির কাছে আবেদন করতে চলেছে ক্লাব।

সাংবাদিক সম্মেলনে এসে ময়দানের ‘নিতুদা’ বলেন, ‘সেদিন যে ঘটনাটা ঘটেছে সেটা সত্যিই নিন্দনীয়। এই জন্য আমি মাঠেই দেবরাজ ও অভ্রকে বকেছি। কিন্তু আমার প্রশ্ন, চারজনই তো একই অপরাধ করেছে। তাহলে ভিন্ন শাস্তি কেন? আমার কাছে খবর আছে অন্য কেউ এই ব্যাপারে ইন্টারফেয়ার করেছে। সেটা ময়দানেরই একটি বড় দল (নাম না করে মোহনবাগানের দিকে তীর)। সেই দলের কর্তারা এই ক্ষেত্রে নাক গলিয়েছেন বলে আমার কাছে খবর আছে। আমি চাই সকলের সমান শাস্তি হোক। দেবরাজ ও অভ্রর শাস্তি কমানোর জন্য আমরা আজই আপিল করবো। আর যাতে আর্থিক জরিমানা এক লক্ষ করে না হয়ে পঞ্চাশ হাজার করে হয়, সেটারও আবেদন করব। আর সেসব না হলে কোর্টের রাস্তা তো খোলাই রয়েছে।’

আইএফএকে নিশানা করে নিতু সরকার আরও বলেন, ‘আইএফএ থেকে বিকালবেলা আমাদের জানানো হচ্ছে সন্ধের মধ্যে আইএফএ অফিসে চারজনকে পাঠাতে। কেন? কিসের এত তৎপরতা? পরের দিন ম্যাচ আছে জেনেও কেন ওনারা খেলোয়াড়দের রাত অবধি বসিয়ে রেখেছিলেন? আইএফএ সচিবের এতই যখন তৎপরতা, তাহলে বলি আইএফএর কাছে আমাদের প্রায় কোটি টাকা দেনা রয়েছে। সেটা যেন আমাদের তাড়াতাড়ি মিটিয়ে দেওয়া হয়।’

এদিন ইস্টবেঙ্গল মাঠ নিয়ে উষ্মা প্রকাশ করেছেন আলেহান্দ্রো। সেই প্রসঙ্গে লাল হলুদ কর্তা বলেন, ‘আজ মাঠ যথেষ্ট খারাপ ছিল মেনে নিচ্ছি। সবে বৃষ্টি হয়েছিল। কিন্তু সামগ্রিকভাবে আমাদের মাঠ ময়দানের অন্য সব মাঠের থেকে বেশি ভালো। এই বছর আমরা মাঠের কাজ করতাম। সব কথা এগিয়েও ছিল। কিন্তু এবার একটা সময় বালির খুব ক্রাইসিস দেখা দিয়েছিল। সেই কারণে হয়নি কাজ। তবে আগামী বছর মাঠ তৈরি হয়ে যাবে।’

এছাড়া কোয়েসের সঙ্গে সম্পর্ক ছাড়াছাড়ি হওয়া নিয়ে দেবব্রত সরকার বলেন, ‘কোয়েসের সঙ্গে আমাদের সম্পর্ক একদম ঠিক আছে। কোনও সমস্যা নেই। কোয়েস আমাদের সঙ্গে আর থাকতে চায়না, এমন কথা আমরা শুনিনি। আমরা কোয়েসের সঙ্গেই থাকতে চাই। তবে ওরা যদি সরে যায়, তাহলে আমি দায়িত্ব নিয়ে বলছি ইস্টবেঙ্গল ক্লাব একটা দিনের জন্যও স্পনসরলেস থাকবে না।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here