ডেস্ক: বালাকোটে এয়ার স্ট্রাইকের পর গোটা পৃথিবীর কাছে পাকিস্তান নিজেদের হাসির খোরাক করে তুলেছে। বুধবার এমনই মন্তব্য করলেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ।

এদিন সর্বভারতীয় সংবাদসংস্থা এএনআইকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে নির্মলা বলেন, পাকিস্তান কয়েকজন প্রতিরক্ষা বিশেষজ্ঞ এবং সাংবাদিকদের এমন এমন জায়গায় নিয়ে যাচ্ছে যেখানে ভারতীয় বায়ুসেনা যায়নি। এরকম কাজ করে নিজেদের হাসির খোরাক করে তুলেছে পাকিস্তান। পাকিস্তান ওই সাংবাদিকদের এবং বিশেষজ্ঞদের যেখানে হামলা হয়েছে সেখানে না নিয়ে গিয়ে সেইসব মাদ্রাসায় নিয়ে গিয়েছে। যেখানে কিনা ভারতীয় বায়ুসেনা হাত অবধি লাগায়নি। আমি বলছি ওই মাদ্রাসার ঠিক পিছনে যান, সেখানেই জইশ-ই-মহম্মদের প্রশিক্ষণ কেন্দ্র রয়েছে। পাকিস্তান রীতিমতো তাঁদের নিয়ে সেখানে পিকনিক করছে।

বালাকোটে এয়ার স্ট্রাইকের ক্ষয়ক্ষতি সম্বন্ধে কেন্দ্র কেন চুপ রয়েছে সে ব্যপারে প্রতিরক্ষামন্ত্রীকে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি জানান, এই হামলা হওয়ার আগে কয়েকটি পাক ওয়েবসাইটগুলি দাবি করেছিল যে, কয়েকজন যুবককে সন্ত্রাসবাদীদের প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে। ২০০৮ সালে মুম্বই হামলার অন্যতম চক্রিরা সাধারণ যুবকদের নিজেদের দলে টেনে প্রশিক্ষণ দিচ্ছিল বলে দাবি করা হয়। উল্লেখ্য, ২৬ ফেব্রুয়ারি ভারতীয় বায়ুসেনা ১২টি মিরাজ-২০০০ যুদ্ধবিমান দিয়ে নিয়ন্ত্রণরেখা পাড় করে পাক অধিকৃত কাশ্মীরের বালাকোটে হামলা চালায়। হামলার পর ভারতের তরফ থেকে দাবি করা হয় যে, এই হামলায় জইশ-ই-মহম্মদের শীর্ষ কম্যান্ডর সহ বহু জঙ্গি নিহত হয়েছে। তবে এই বিশয়নিয়ে বিতর্কের শেষ নেই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here