bengali news
Highlights

  • পুলিশ নাকি জানিয়েছে তাদের কাছে কোনও পদক্ষেপ নেওয়ার অর্ডার নেই
  • দিল্লিতে যখন সংঘর্ষ চলছিল তখন তারা দাঁড়িয়ে শুধু তা দেখেছে
  • এলাকাগুলিতে যখন সাংবাদিকরা গিয়ে তথ্য সংগ্রহ করেছে তখন প্রায় প্রত্যেকেই একই কথা বলেছে

মহানগর ওয়েবডেস্ক: দিল্লি পুলিশ সংঘর্ষ আটকাতে কিছুই করেনি, চাইলেই তারা পারত। এমনই মন্তব্য করে তীব্র ভর্ৎসনা করেছিল দিল্লি হাইকোর্ট। একইরকমভাবে পুলিশের ওপর কিছু না করার অভিযোগ এর আগেও তুলেছে বিরোধীরা, তা সে জামিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ঘটনা হোক কিংবা শাহিনবাগ বা হালের রাজধানীর সংঘর্ষ। কিন্তু এবার আরও চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে এল সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যম ‘ইন্ডিয়া টুডে’-র রিপোর্টে। জানা গেল, পুলিশ নাকি জানিয়েছে তাদের কাছে কোনও পদক্ষেপ নেওয়ার অর্ডার নেই! এতএব, দিল্লিতে যখন সংঘর্ষ চলছিল তখন তারা দাঁড়িয়ে শুধু তা দেখেছে।

সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, সংঘর্ষ প্রবণ এলাকাগুলিতে যখন সাংবাদিকরা গিয়ে তথ্য সংগ্রহ করেছে তখন প্রায় প্রত্যেকেই একই কথা বলেছে যে, দিল্লি পুলিশ কিছু পদক্ষেপ নেয়নি। উল্টে, নীরব দর্শকদের মতো দাঁড়িয়েছিল। কেউ কেউ তো বলছেন, ভাজনপুরা এলাকাতে যখন দুষ্কৃতীরা পেট্রল পাম্প জ্বালিয়ে দিচ্ছে এবং পাথ ছুড়ছে তখন পুলিশ বাথরুমে লুকিয়ে ছিল! জানা গিয়েছে, তখন এই সময় অন্তত ২০০০ জন দুষ্কৃতী পাম্পে আগুন লাগাচ্ছিল, এবং পুলিশ এলাকতেই আসেনি। যারা ছিল তাদের মধ্যে ৪ জন আবার সামনের বাথরুমে লুকিয়ে পড়েছিল, একজন গোটা ঘটনা শুধু দেখছিল।

স্থানীয়দের দাবি, প্রথমে তো কোনও পুলিশ ওখানে আসেইনি, যারা এসেছিল তারা নীরব হয়ে দাঁড়িয়ে ছিল। তাদেরকে সাহায্যের জন্য বলায় পুলিশ জানায়, তাদের কাছে কোনও অর্ডার নেই। পুলিশ তাদের বলেছিল, তোমাদের যা করার তোমরা তা কর, তারা কোনও পদক্ষেপ নিতে পারবে না, কারণ ওপরমহল থেকে কোনও নির্দেশ আসেনি। যতক্ষণ না পর্যন্ত কোনও নির্দেশ না আসে ততক্ষণ তারা কিছুই করতে পারবেন না বলে জানিয়ে দেন তারা।

উল্লেখ্য, দিল্লিতে ভয়াবহ পরিস্থিতির মাঝে বৃহস্পতিবার বিধানসভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল ইতিমধ্যেই ঘোষণা করেছেন দিল্লিতে হিংসার জেরে যে সমস্ত ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে তাঁদের পরিবারকে দেওয়া হবে ১০ লক্ষ টাকা করে ক্ষতিপূরণ। পাশাপাশি, হিংসার জেরে যে সব শিশুর বাবা বা মা মারা গিয়েছে, সেই শিশুদের দেওয়া হবে ৩ লক্ষ টাকা। যাদের বাড়ি পুরোপুরি পুড়ে গিয়েছে বাড়ি নতুন ভাবে তৈরি করার জন্য দেওয়া হবে ৫ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ। ২.৫ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে আংশিক পুড়ে যাওয়া বাড়ির মালিককে। পাশাপাশি বিমা বিহীন যে সমস্ত সম্পত্তি নষ্ট হয়েছে এই হিংসার জেরে সেই সম্পত্তির মালিককে ৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ক্ষতিপুরণও ঘোষণা করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here