national news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: রাজধানীর হিংসা নিয়ে বুধবার অবশেষে মুখ খুললেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। স্পষ্ট ভাষায় জানিয়ে দিলেন, দিল্লির এই হিংসায় রাজনৈতিক ষড়যন্ত্র ছিল। পাশাপাশি, হিংসায় জড়িত কোনও ব্যক্তিকেই রেহাত করা হবে না বলে স্পষ্ট ভাষায় জানিয়ে দিলেন তিনি। এছাড়াও হিংসা রুখতে দিল্লি পুলিশের সক্রিয়তার প্রশংসাও করলেন তিনি।

নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের বিরুদ্ধে গত ২৩ ফেব্রুয়ারি তেতে উঠেছিল রাজধানী দিল্লির উত্তর-পূর্ব বৃহত্তম অংশ। যার আঁচ ছিল ২৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। হিংসার জেরে দিল্লিতে প্রাণ যায় ৫৩ জন। আহত হন প্রায় ২০০ জন। সেই ঘটনার এতদিন পর লোকসভায় সরব হয়ে উঠলেন দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘হিংসায় যারা জড়িত তাদের কাউকেই রেহাত করা হবে না। দিল্লিতে হিংসার জন্য উত্তর প্রদেশ থেকে প্রায় ৩০০ জন এসেছিল। ১১০০ জনকে ইতিমধ্যেই সিসিটিভি ফুটেজ ধরে চিহ্নিত করা গিয়েছে।’ এই ঘটনার পিছনে রাজনৈতিক ষড়যন্ত্র ছিল বলেও দাবি করেন তিনি। পাশাপাশি হিংসার ঘটনায় যারা প্রাণ হারিয়েছেন ও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন তাঁদের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে শাহ বলেন, ২৫ ফেব্রুয়ারির পর আর কোনও হিংসার ঘটনা ঘটেনি দিল্লিতে। পরিস্থিতি সামলে নিয়েছে দিল্লি পুলিশ। বিষয়টি নিয়ে অযথা রাজনীতি করা হচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

দিল্লি হিংসায় পুলিশের ঠুঁটো জগন্নাথ হয়ে থাকার বিষয়টি নিয়ে বিরোধীদের সরব হওয়া প্রসঙ্গে তাঁদের পাল্টা দিয়ে পুলিশের ভূয়সী প্রশংসাও করতে দেখা যায় শাহকে। তাঁর কথায়, ‘বার বার প্রশ্ন তোলা হয়েছে দিল্লি হিংসার সময়ে পুলিশ কী করছিল? পুলিশ ঘটনাস্থলেই ছিল এবং ৩৬ ঘন্টার মধ্যে গোটা পরিস্থিতি সামলেছে তারাই। গোটা পরিস্থিতির উপর নজর রেখেছিলাম আমি। আমার পরামর্শেই নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভাল ঘটনাস্থলে গিয়েছিলেন। পুলিশ তৎপর ছিল বলেই হিংসা অন্যত্র ছড়িয়ে পড়েনি। এদিকে দিল্লি পুলিশকে এভাবে দরাজ সার্টিফিকেট দেওয়ার প্রতিবাদে কক্ষ ত্যাগ করেন কংগ্রেস সাংসদরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here