ডেস্ক: সুপ্রিম কোর্টের রায়ের পর আপাতত ক্ষমতার লড়াইয়ে এগিয়ে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। সুপ্রিম কোর্ট সাফ জানিয়ে দিয়েছে উপরাজ্যপাল অনিল বালাজি নন দিল্লির শাসনের প্রকৃত ক্ষমতার অধিকারী মুখ্যমন্ত্রী। উপরাজ্যপালকে সরকারের সঙ্গে সমন্বয় করে কাজ করতে হবে। এমনটাই রায় দিল বিচারপতি দীপক মিশ্রের ৫ সদস্যের ডিভিশন বেঞ্চ। এর আগে ২০১৬ সালে দিল্লি হাইকোর্ট উপরাজ্যপালকে প্রশাসনিক শাসক হিসাবে অগ্রাআধিকার দিয়েছিল। এদিন সেই রায়কেই কার্যত খারিজ করে দিল শীর্ষ আদালত।

এই ঘটনার সূত্রপাত গত বছর। কেন্দ্রীয় সরকার অরবিন্দ কেজরিওয়ালের সমস্ত ক্ষমতা ধীরে ধীরে কেড়ে নিচ্ছে। উপরাজ্যপাল তাঁর একাধিক উন্নয়নমূলক কাজে বাঁধা সৃষ্টি করছে। এরকম একাধিক অভিযোগের ভিত্তিতেই সুপ্রিম কোর্টে একটি পিটিশন দাখিল করেছিল আপ সরকার। সেই মামলারই নিষ্পত্তি হল এবার। সেখানে অরবিন্দ কেজরিওয়ালকে অতিরিক্ত ক্ষমতা দেওয়ার পাশাপাশি উপরাজ্যপালের ক্ষমতাকে সীমিত করা হয়েছে। এখন থেকে আইনসভার সঙ্গে পরামর্শ করে চলতে হবে উপরাজ্যপালকে। যে কোনও সিদ্ধান্ত ক্যবিনেট উপরাজ্যপালকে অবশ্যই জানাবে। কিন্তু তিনটি বিশেষ ক্ষেত্র ছাড়া অন্যান্য বিষয়ে উপ রাজ্যপালের অনুমতির কোনও প্রয়োজন নেই ক্যাবিনেটের। ভূমি, পুলিশ ও পাবলিক অর্ডারের মতো কিছু বিষয় বাদ দিয়ে সব বিষয়েই প্রশাসনিক অধিকার থাকেবে দিল্লি সরকারের। দিল্লির আপ সরকারের কোনও নীতি রূপায়নের ক্ষেত্রে উপরাজ্যপাল বাঁধা সৃষ্টি করতে পারবেন না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here