delivery boy

মহানগর ডেস্ক: সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। সেখানে দেখা গিয়েছে, দুই বছরের একটা ছোট্ট মেয়ে ১২ তলা ব্লিডিং থেকে পড়ে যাচ্ছে। ছুটে গিয়ে তাকে ধরলেন নীচে দাঁড়িয়ে থাকা ‘ডেলেভারি বয়’। সোশ্যাল মিডিয়ায় এই ভিডিও দেখে শিউরে উঠছেন অনেকে। এক সেকেন্ডের এদিক ওদিক হলে ছোট্ট মেয়েটির কি হতো, ভাবলেই গায়ে কাঁটা দিয়ে উঠছে সকলের। ভিয়েতনামের রাজধানী হ্যানয়ে ঘটনাটি ঘটেছে।

নুগেয়েন নগ মনহ নামের ৩১ বছরের যুবক একটি বহুতলের সামনে ছিলেন। তিনি নিজের ট্রাকের ভিতর বসে অপেক্ষা করছিলেন একটি পার্সেলের। স্থানীয় সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, সেই সময় এক মহিলার চিৎকার ও একটি শিশুর কান্না শুনতে পান। প্রথমে তিনি ভেবেছিলেন, কোনও মা বোধহয় তাঁর শিশুকে বকছেন। পরে দেখতে পান শিশুটি ব্যালকনিতে ঝুলছে। তারপরেই নীচে পড়ে যায়। সোশ্যাল মিডিয়ায় দেখা যায় দু মিটার উঁচু ছাদে উঠে শিশুটিকে লুফে নেন মনহ। কাজটা মোটেও সহজ ছিল না। মনহ বলেন, ‘মিনিট খানেকের মধ্যে গোটা ঘটনা ঘটে। আমি বুঝতে পারি, শিশুটি ওই সামনের ছোট ছাদটায় পড়বে। আমি ওই ছাদটায় চলে যাই। আমি এখনও ভাবতে পারছি না, ওই ছোট্ট শিশুকে বাঁচাতে পেরেছি। আমি এখনও জানি না ওই উঁচু ছাদটায় আমি কীভাবে উঠেছি। ১২ তলা থেকে খুব জোরে শিশুটি পড়ছিল। আমি সেই সময় প্রাণপনে শিশুটে ধরার চেষ্টা করেছিলাম। যাতে কোনও ভাবেই হাত থেকে ফসকে না যায় শিশুটি।’

শিশুটিকে সঙ্গে সঙ্গে হ্যানয়ের ন্যাশনাল চিল্ড্রেন হাসপিটালে নিয়ে যাওয়া হয়। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, শিশুটির নিতম্ব শুধু স্থানচ্যুত হয়েছে। সারা শরীরে আর কোনও আঘাত নেই। মনহ জানান, ‘বাড়িতে আমার দুই বছরের শিশু রয়েছে। সেই সময় আমার শুধু নিজের শিশুটির কথা মনে পড়ছিল।’ ভিয়েতনামের সাধারণ মানুষ দেশের হিরো বলে আখ্যা দিয়েছেন। কুর্নিশ জানিয়েছন নেটিজেনরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here