ডেস্ক: আন্তর্জাতিক বাজারে অশোধিত তেলের দাম কমেছে। তাই দেশজুড়েও এবার কমতে পারে পেট্রোল-ডিজেলের দাম। এমন কথা সংবাদ মাধ্যমে চাউর হয়েছিল ঠিকই। কিন্তু এক ঘোষণায় মধ্যবিত্ত মানুষের মন ভেঙে দিলেন পেট্রোলিয়াম মন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান। একটি সর্বভারতীয় সংবাদ মাধ্যমের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে তিনি জানান, রাতারাতি পেট্রোপণ্যের দাম কমার কোনও সম্ভাবনা নেই। যদিও তাঁর দাবি, সাধারণ মানুষের কষ্ট লাঘব করতে লাগাতার চেষ্টা করে যাচ্ছে কেন্দ্রীয় সরকার। কিন্তু কেন্দ্রের ‘চেষ্টা’ ঠিক কী ধরণের তা খোলসা করেননি ধর্মেন্দ্র।

পেট্রোপণ্যের এই মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে সরব ইতিমধ্যেই সরব হয়েছে বিরোধী দলগুলি। এদিন মেয়ো রোডে দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে একটি সভার আয়োজন করা হয় তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে। সেই সভায় উপস্থিত ছিলেন যুব তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় ও মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

ধর্মেন্দ্র প্রধানের যদিও দাবি, সরকার এই সমস্যার স্থায়ী সমাধান খুঁজছে। একই সঙ্গে পেট্রোল-ডিজেলকে জিএসটির স্ল্যাবে অন্তর্ভুক্ত করা যায় কিনা এই বিষয়টি নিয়েও কেন্দ্র চিন্তাভাবনা করছে বলে জানান তিনি। প্রসঙ্গত, দিনকয়েক আগেই প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী পি চিদম্বরম দাবি করেছিলেন যে সরকার চাইলেন পেট্রোলের দাম ২৫ টাকা প্রতি লিটার পর্যন্ত কমাতে পারে। পেট্রোলিয়াম মন্ত্রীকে সেই প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, চিদম্বরমকে বলুন ৫ জন অর্থনীতিবিদকে নিয়ে আমার সঙ্গে কথা বলতে যে কীভাবে এর দাম কমানো সম্ভব।

অন্যদিকে, মঙ্গলবার এই নিয়ে টানা ১৬ দিন পর্যন্ত বাড়ল পেট্রোপণ্যের দাম। কলকাতায় ইতিমধ্যেই পেট্রোলের দাম ৮১ টাকা ছুঁয়েছে। বাণিজ্য নগরী মুম্বইতে পরিস্থিতি আরও খারাপ। সেখানে আজ পেট্রোলের দাম ছিল লিটার প্রতি ৮৬.২৪ টাকা।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here