kolkata bengali news

নিজস্ব প্রতিবেদক, মেদিনীপুর : বুধবার পশ্চিম মেদিনীপুরে কেশিয়াড়ি বিধানসভার বিজেপির বুথ স্তরের কর্মীদের নিয়ে কর্মী সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছিল। যেখানে উপস্থিত ছিলেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি তথা মেদিনীপুর লোকসভার প্রার্থী দিলীপ ঘোষ সহ অন্যান্য নেতৃত্বরা। এই সভাতে বেশকিছু তৃণমূলের কর্মী সমর্থক বিজেপিতে যোগদান করেন। বিজেপির কাছে গত পঞ্চায়েত নির্বাচনে ভালো ফল করা বিধানসভার একটি হল কেশিয়াড়ি বিধানসভা এলাকা। বেশিরভাগ গ্রাম পঞ্চায়েত বিজেপি দখল করলেও আইনি জটিলতার কারণে পঞ্চায়েত সমিতি আজও গঠন হয়নি সেখানে। সেই কেশিয়াড়ি তেই বুধবার কর্মী সম্মেলন করার সময় দিলীপ ঘোষ৷ তৃণমূল সরকারকে আক্রমণ শানিযে বললেন, চালাকি করে আমাদের বোর্ড গঠন করতে দেওয়া হয়নি। চিন্তার কিছু নেই নতুন করে প্রধানমন্ত্রীর শপথ নেওয়ার দিনই আমরা কেশিয়াড়িতে পঞ্চায়েত বোর্ড গঠন করবো। এদিন মুখ্যমন্ত্রীকেও কটাক্ষ করে দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘দিদিমণি ক্যান্ডিডেট পাননি, তাই নায়িকাদের নিয়ে গেছেন নাচাতে। নাচ গান শুনে এখন আর কেউ ভোট দেবে না। কাজ দেখে ভোট দেবে। যুবরাজও যুবরাজই রয়ে যাবেন, মহারাজ হতে পারবেন না। এখান থেকেই অবসর নিতে হবে তাকে। যেমন দিল্লিতেও যুবরাজকে হতে হচ্ছে।

এদিন নিজের বক্তব্যে কর্মীদের সামনে নির্বাচন পর্বে কী কী সক্রিয় পদক্ষেপ নিতে হবে তার পরামর্শ দিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘বহিরাগত তৃণমূলের গুন্ডারা যাতে না ঢুকতে পারে তার জন্য সকলের সক্রিয় থাকবেন। কেউ ঢুকলে তাদের ইচ্ছায় ঢুকবেন, বেরোবেন আমাদের ইচ্ছায়। সেটা হেঁটে, শুয়ে কিভাবে যাবেন আমরা ঠিক করব। একইসঙ্গে আপনারাও আপনাদের আত্মীয়দের বলে দিন ভোটের দিন যেন এলাকায় না আসে। আত্মীয় বন্ধু-বান্ধব পরিচয় দিয়ে বহিরাগতদের প্রবেশ আটকাবেন। পুলিশের কাছে শক্ত হতে হবে। কারণ পুলিশ শক্তের ভক্ত নরমের যম। কর্মীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন,’আমাদের কাছে সমস্ত স্তরের কর্মীর সমান মর্যাদা। ভারতী ঘোষ এক সময় এই জেলার এসপি থাকাকালীন আমরা এসপি অফিস থানা ঘেরাও করতাম। উনি তখন এই সরকারের লোক ছিলেন।

সরকার তাকে তাদের মত কাজ করিয়েছে। ভুল বুঝতে পেরে উনি তাদের ছেড়ে বেরিয়ে এসেছেন গরিব মানুষদের হয়ে কাজ করতে। আজ উনিও প্রতিবাদে নেমে রাস্তা ঘেরাও, থানা ঘেরাও করছেন।’ এদিন ভারতী ঘোষের বিষয়ে সুপ্রিম কোর্টের জেরা করার নির্দেশ প্রসঙ্গে দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘উনি আইনের পথে গিয়েছেন। এর কোনও প্রভাব ভোটে পড়বে না। ভারতী ঘোষকে যেমন জিজ্ঞাসা করবে তেমন উত্তরও তিনি দেবেন।’ তৃণমূলের জেলা সভাপতি অজিত মাইতি এ বিষয়ে বলেন, ‘আমাদের দলে নায়িকা দেখে দিলীপ ঘোষ কি নিজের দলের কথা ভুলে গেলেন। হেমা মালিনি ওনার দলে রয়েছে তো। আসলে পাগলে কিনা বলে ছাগলে কিনা খায়। ওনার কথার উত্তর দেওয়াটাও রুচিতে বাধে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here