নিজস্ব প্রতিবেদক, ঝাড়গ্রাম: বিজেপি কর্মীদের মিথ্যা মামলার বেড়াজাল দিয়ে আটকে রাখা যাবেনা৷ যারা এটা মনে করছেন তারা মুর্খের স্বর্গে বাস করছেন৷ বোর্ড গঠন ঘিরে বিজেপির বিরুদ্ধে তৃণমূলের ওপর হামলার  যে অভিযোগ করা হয়, তাতে আত্মসমর্পন করে জামিন পেয়ে এভাবেই বিরোধীদের হুঁশিয়ারি দিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ৷ নির্বাচন পরবর্তী সময়ে পশ্চিম মেদিনীপুরের কেশিয়াড়ীতে পঞ্চায়েত বোর্ড গঠনকে কেন্দ্র করে বেশ কয়েকবার সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে ৷ পঞ্চায়েত বোর্ড গঠনকে কেন্দ্র করে পঞ্চায়েত অফিসের যাওয়ার পথে তৃণমূল কর্মীদের গাড়িতে হামলা চালানো হয় ৷ তৃণমূলের পঞ্চায়েত সদস্য সহ কয়েকজন কর্মী অপহরনের অভিযোগ উঠেছিল বিজেপির বিরুদ্ধে ৷ এই হামলা ও অপহরনের ঘটনায় বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ সহ ২৬ জন স্থানীয় বিজেপি কর্মীর নামে কেশিয়াড়ি থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয় ৷ সেই মামলায় বৃহস্পতিবার মেদিনীপুর জেলা আদালতে আত্মসমর্পন করে জামিন পেলেন দিলীপ ঘোষ ৷

এদিন মেদিনীপুর শহরে বিজেপির পক্ষ থেকে আয়োজিত নরেন্দ্র মোদীর “মেরা বুথ সবসে মজবুত” কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন দিলীপ ঘোষ৷শহরের বিদ্যাসাগর হলে আয়োজিত এই কর্মসূচিতে জেলা নেতাদের সঙ্গে হাজির ছিলেন তিনি ৷ সেখানে কর্মীদের বলেন “ আগামী ৩ মার্চ প্রতি বিধানসভায় বাইক র‍্যালি হবে৷ সেনা জাওয়ানদের সম্মানে সৈনিক সম্মান সমারোহ হবে ৷ সেনা, বিএসএফ পরিবারে যোগাযোগ করে তাদের সম্মান দিতে হবে৷ শহীদ থাকলে তাদেরকেও শ্রদ্ধা জানাবে কর্মীরা৷” অন্যদিকে একই রকমের কর্মসূচী ঝাড়গ্রামে বিজেপি নেতা কৈলাস বিজয় বর্গীয়র সঙ্গে হাজির হয়েছিলেন প্রাক্তন পুলিশ সুপার ভারতী ঘোষ৷ জঙ্গলমহলের কর্মীদের সঙ্গে বসে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য শোনেন তিনি৷ এদিন কৈলাস বিজয়বর্গীয় বলেন “ দীর্ঘদিন এখানে কাজ করেছেন ভারতী ঘোষ ৷ তাঁর পুরনো অভিজ্ঞতা দিয়েই দলের কাজ করবেন ৷” দীর্ঘদিন পরে ভারতী ঘোষ ঝাড়গ্রামে প্রথম এসে বলেন “মনে হল অনেকদিন পরে পরিবারের কাছে ফিরলাম৷ কোনও উদ্দেশ্য নিয়ে এই দলে যোগ দিই নি ৷ কাজের জন্য যোগ দিয়েছি৷ কোনও টিকিট বা পদের জন্য লোভ থাকলে আমি উঁচু পোস্ট ছেড়ে এখানে আসতাম না ৷ আমি অনুগত কর্মী হিসেবে দলের নির্দেশে কাজ করবো ৷ ”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here