বঙ্গে সংগঠন বৃদ্ধির দিকেই নজর সংঘের, বৈঠক শেষে মোহন বার্তা দিলীপকে

0
657
kolkata bengali news

নিজস্ব প্রতিবেদক, উলুবেড়িয়া: প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের পর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন, এ রাজ্যে এনআরসির প্রয়োজন নেই। ওটা অসমের ব্যাপার। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রীর ‘আশ্বাসে’ নিশ্চিন্ত হতে পারেননি বঙ্গবাসী। এনআরসি আতঙ্কে একের পর এক মৃত্যু তার জ্বলন্ত উদাহরণ। এমতবস্থায় বিজেপি রাজ্যে সভাপতি দিলীপ ঘোষ দাবি করলেন, রাজ্যে এনআরসি নিয়ে আতঙ্কের পরিবেশ তৈরী করে মানুষকে ভয় দেখানো হচ্ছে। যদিও মমতা বন্দোপাধ্যায় কোনও ভাবেই রাজ্যে এনআরসি আটকাতে পারবে না বলেও হুমকি দিয়ে রেখেছেন তিনি।

রবিবার উলুবেড়িয়া তাঁতিবেড়িয়ায় রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘের দু’দিনের সমন্বয় বৈঠকের শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্বের উত্তরে এই কথা বলেন দিলীপ ঘোষ। সংঘ প্রধানের সঙ্গে বৈঠক শেষে দিলীপ ঘোষ বলেন, মোহন ভাগবত সংগঠনের কাজ আরও বাড়াতে বলেছেন। এনআরসি নিয়ে দিলীপের বক্তব্য, ‘নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল আমরা আনছি। সমস্ত হিন্দুদের আমরা নাগরিগত্ব দেব, যেটা আগে কেউ দেয়নি। আমরা এটা নিয়ে লোকেদের সঙ্গে কথা বলব।’

এনআরসি নিয়ে প্রথম থেকেই বিরোধিতার সুর সপ্তমে তুলেছেন তৃণমূল নেত্রী। দিল্লি সফরের পর সেই ঝাঁজ কিছুটা কম হয়েছে বটে। কিন্তু জায়গায় জায়গায় এর বিরোধিতায় নানা কর্মসূচি চালাচ্ছে শাসকদল। সেই নিয়ে প্রশ্ন করা হলে খোঁচার সুরে বিজেপি রাজ্য সভাপতি বলেন, জিএসটি, তিন তালাক, নোটবন্দি কোনও টাই মমতা বন্দোপাধ্যায় আটকাতে পারেননি। এনআরসিও আটকাতে পারবেন না।

চিটফান্ড ইস্যুতেও সরব হতে শোনা যায় তাঁকে। বলেন, ‘আগে চিটফান্ডের টাকা আসত তখন দুর্গা পুজোয় রমরমা ছিল। তবে এখন চিটফান্ড নিয়ে সিবিআই তৎপর হওয়ায় কেই আর টাকা দিতে সাহস পাচ্ছে না। তবে আমরা চাই মানুষেরর পয়সায় শ্রদ্ধা ভক্তির সঙ্গে পুজো হোক।’

প্রসঙ্গত শনিবার সকাল থেকে উলুবেড়িয়ার তাঁতিবেড়িয়ার সারদা শিশু মন্দিরে রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘের দক্ষিণবঙ্গ ও উত্তরবঙ্গের ৩৭টি শাখা সংগঠনের প্রায় ২৫০ জন প্রতিনিধিকে নিয়ে দু’দিনের সমন্বয় বৈঠক শুরু হয়েছিল। যেটা রবিবার বিকালে শেষ হয়। বৈঠকে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘের প্রধান মোহন ভাগবত, বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ, রাজ্য সম্পাদক সায়ন্তন বসু, কৈলাস বিজয়বর্গীয়, মুকুল রায়, রাহুল সিনহা, সাংসদ সুরিন্দর সিং আলুওয়ালিয়া সহ রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘের নেতৃত্ববৃন্দ।

সারদা শিশুমন্দিরে রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘের দু’দিনব‍্যাপী চিন্তন বৈঠকে সঙ্ঘচালক মোহন ভাগবত চন্দনগাছ রোপন করেন। বিশ্ব‌উষ্ণায়নের হাত থেকে পৃথিবীকে বাঁচানো ও পরিবেশ সুরক্ষার বার্তাও দেন।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here