dilip-ghosh

নিজস্ব প্রতিনিধি, পূর্ব মেদিনীপুর: আমফান পরবর্তী পরিস্থিতি পরিদর্শন করতে এসে ক্রমাগত বাধার সম্মুখীন হন বিজেপি’র রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। সকাল ১১ টা নাগাদ তিনি এসে পৌঁছন পূর্ব মেদিনীপুর এর কোলাঘাটে। সেখানে তাকে পুলিশ নিয়মমাফিক জিজ্ঞাসা করার পর তার কনভয় ৪১ নম্বর জাতীয় সড়ক ধরে এগিয়ে চলে মহিষাদল থানার গোপালপুরের উদ্দ্যেশে। সেখান থেকে দলীয় কর্মীদের সঙ্গে কথা বলার পর তাঁর যাওয়ার কথা ছিল সুতাহাটা ও হলদিয়া থানা এলাকার বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন করতে। তাঁর সফরসূচিতে ছিল চণ্ডীপুর, নন্দীগ্রাম নাচিনদা, কাঁথি ও এগরা। সর্বত্রই তিনি কর্মীদের সঙ্গে আমফান পরবর্তী পরিস্থিতি নিয়ে কথা বলতেন বলে জানানো হয় বিজেপি’র পক্ষ থেকে। অবশেষে রাজ্য বিজেপি সভাপতির ফিরে যাওযার কথা ছিল খড়গপুরে।

গোপালপুর এর উদ্দেশে যাওয়ার সময় ৪১ নম্বর জাতীয় সড়কের নন্দকুমার হাইরোডের আগে খঞ্চি এলাকায় রাস্তায় যানজট এর মুখে পড়ে দিলীপ ঘোষের গাড়ি। নন্দকুমার থানার পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয় সামনে জল ও ইলেকট্রিক নেই বলে বিক্ষোভ চলছে। তাই বিজেপি রাজ্য সভাপতির কনভয় ঘুরিয়ে দেওয়া হয়। এরপর ৪১ নম্বর জাতীয় সড়কের কামারদা এলাকা থেকে গ্রাম্য সড়ক ধরে তার কনভয় পিয়াদা এলাকা হয়ে হলদিয়া-মেছেদা রাজ্জ্য সড়ক দিয়ে গোপালপুর এর দিকে এগোতে থাকে। কিন্তু একটু এগোনোর পর শ্রীকৃষ্ণপুর এলাকায় এসডিপিও অতীশ বিশ্বাস এর নেতৃত্বে বিশাল পুলিশ বাহিনী তার কনভয় আটকায়। জানানো হয় সামনে বিভিন্ন জায়গায় অবরোধ চলছে তাই তিনি যেতে পারবেন না কোথাও। তার গাড়ি ঘুরিয়ে নিয়ে যেতে বলেন এসডিপিও। পরক্ষণে বিজেপি কর্মীদের সঙ্গে পুলিশের বচসা শুরু হয়। দিলীপ ঘোষের নির্দেশে বিজেপি তমলুক সাংগঠনিক জেলা সভাপতি নবারুণ নায়েক–এর নেতৃত্বে কর্মীরা পুলিশের কাছে কারণ জানতে চান। বিজেপি কর্মীদের বক্তব্য, পুলিশ কোনও সদুত্তর দিতে পারেনি।

এরই মধ্যে শ্রীকৃষ্ণপুর এলাকায় হাজির হন তৃণমূলের একদল কর্মী। তারা দিলীপ ঘোষ–এর উদ্দেশে গো ব্যাক স্লোগান দিতে থাকেন। পুলিশের তরফ থেকে তাদের সরে যেতে বলা হয়। এই সময় এলাকায় কিছুটা উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। জেলা বিজেপি সভাপতি নবারুণ নায়েক ও বাকিরা রাস্তায় বসে পড়ে জানান তারা সরবেন না। ইতিমধ্যে নন্দকুমার ও পার্শ্ববর্তী বিভিন্ন থানা থেকে বিপুল পরিমাণ পুলিশ বাহিনী হাজির হয়। দীর্ঘক্ষণ পুলিশের বাধায় আটকে থাকার পর দিলীপ ঘোষ সিদ্ধান্ত নেন তিনি ফিরে যাবেন।

অন্যদিকে দলীয় রাজ্য সভাপতিকে পথে আটকানোর খবর পেয়ে তমলুকের শঙ্করআড়া বাসপুল, মহিষাদল সহ বিভিন্ন জায়গায় পথ অবরোধ শুরু হয়। অবশেষে দিলীপ ঘোষ ও বিজেপি নেতৃত্ব তমলুক এ জেলা কার্যালয়ে আসেন। কিছুক্ষন দলীয় কর্মীদের সঙ্গে আলোচনা করার পর তিনি সিদ্ধান্ত নেন খড়গপুর এর উদ্দেশে রওনা দেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here