নিজস্ব প্রতিবেদক, বনগাঁ: কূমন্তব্যের জন্য বরাবরই সংবাদ শিরোনামে থাকেন রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ। বাঁশ, আছোলা বাঁশ দিয়ে পুলিশ পেটানো, তেলমাখানো লাঠি দিয়ে তৃণমূল কর্মীদের পেটানো, মাঝে মাঝে আবার নিজের দলের কর্মীদেরই জুতোর ভয় দেখান তিনি। এহেন দিলীপবাবুর মুখেই এবার উঠে এল মুখ্যমন্ত্রীর নির্মল বাংলা প্রসঙ্গ। শৌচালয়ের সামনে লেখা ‘মুখ্যমন্ত্রীর অনুপ্রেরনায় মিশন নির্মল বাংলা অভিযান’ নিয়ে রাজ্য সরকারের এই প্রচারের কৌশলকে এবার তীব্র ভাষায় কটাক্ষ করলেন দিলীপ ঘোষ।

আসন্ন পঞ্চায়েত নির্বাচন উপলক্ষে রবিবার বনগাঁ মহাকুমার একাধিক স্থানে ভোট প্রচারে আসেন দিলীপবাবু। সেখানেই শৌচালয় প্রসঙ্গ তুলে চাঁচাছোলা ভাষায় তৃণমূল তথা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে আক্রমণ করেন তিনি। তাঁর কথায়, ‘এখন রাজ্যবাসীকে শৌচক্রীয়া করতে গেলেও মুখ্যমন্ত্রীর নাম নিতেহচ্ছে এটা আমাদের দূর্ভাগ্য। তৃনমূল সরকার কত নিচে নামতে পারে এটা তারই উদাহরন।’ একইসঙ্গে তিনি বলেন, ‘এই সরকারের শাসনে ভোটের মনোনয়ন পত্র জমা দেওয়ার জন্য বিডিও অফিসের কোনও প্রয়োজন নেই। থানাতে এখন মনোনয়নের ব্যবস্থা করতে হবে। কারণ পুলিশের কোনও মেরুদন্ড নেই। পুলিশকে সাথে নিয়ে তৃণমূল এখন যা খুশি তাই করছে। বিরোধীদের রাজ্যে এখন কোনও নিরাপত্তা নেই।

শুধু তাই নয়, এ প্রসঙ্গে রাজ্যের বিভিন্ন স্থানে শাসক দলের হাতে বিরোধীদের আক্রান্ত হওয়ার প্রসঙ্গও টেনে আনেন তিনি। তাঁর কথায়, ‘পুলিশ তৃণমূলের হয়ে কাজ করছে। তৃণমূলের অবস্থা এখন মহাভারতের কৌরবদের মতো। দ্রৌপদীর বস্ত্র হরণের পর ওরা যেমন ভস্ম হয়ে গিয়েছিল শাসকদলের অবস্থাও তাই হবে। এদের এখন বিজেপি ভূত তাড়া করে বেড়াচ্ছে। রাজ্যে এখন দাদার চাল আর দিদির নাম চলছে। কারন দু’টাকায় চাল দিচ্ছে মোদী আর নাম হচ্ছে মমতা দিদির। কেন্দ্রীয় সরকারের সব প্রকল্পই এখন তৃণমূল নিজেদের নামে চালাচ্ছে।

উল্লেখ্য, মুখ্যমন্ত্রীর নির্মল বাংলা নিয়ে এর আগেও অভিযোগ তুলেছেন, মুকুল রায় ও কৈলাস বিজয়বর্গীয় মতো নেতারা। তাঁদের দাবি ছিল, এটি মোদী সরকারের স্বচ্ছ ভারত প্রকল্প। সেই প্রকল্পেরই নাম ভাঙিয়ে নির্মল বাংলা করে নিজের নামে চালাচ্ছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এবার সেই নির্মল বাংলা প্রকল্প নিয়েই কূমন্তব্য করলেন রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here