যে মূর্তি ভাঙা হয়েছে সে মূর্তির মাথাই নেই, বিদ্যাসাগর নিয়ে বোমা ফাটালেন দিলীপ

0
39
dilip

মহানগর ওয়েবডেস্ক: বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙা নিয়ে এমনিতেই উত্তাল গোটা বঙ্গ। নাগরিক সমাজ যখন এই ঘটনার নিন্দায় মুখর সেই সময়ে একে অন্যের উপরে দোষারোপ পর্ব চালাচ্ছে তৃণমূল ও বিজেপি দুইপক্ষ। এরইমাঝে বুধবার সাংবাদিক বৈঠক করে মমতাকে আক্রমণ শানিয়ে মূঋ ভাঙা নিয়ে বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তাঁর দাবি, ‘যে বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙা হয়েছে বলে দাবি করা হচ্ছে, আগে থেকেই ওই মূর্তির মাথাই নেই।’

সাংবাদিক বৈঠকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিয়ে চোখা চোখা ভাষায় আক্রমণ শানিয়ে দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘আমার কাছে একটি ছবি আছে। যেখানে বিদ্যাসাগর মূর্তি ভাঙা নিয়ে কথা হচ্ছে। সেই মূর্তির মাথাই নেই। হলের মধ্যে সে মূর্তি আছে, আমি পোস্ট করছি আপনারা দেখবেন। কে ভাঙল আগে থেকে? আগের থেকে ওই মূর্তি ভাঙা হয়ে গিয়েছিল। তারপর টুকরো টুকরো হয়ে তা বাইরে পড়ে ছিল। তারাই কি ভেঙে বাইরে ফেলেছেন? আমাদের লোক তো গেট খুলে ঢোকেনি। পরে সেখানে গিয়ে একটা একটা টুকরো হাতে তুলছেন, আর সেটাকে নিয়ে ইস্যু করছেন মমতা ব্যানার্জি।’ তিনি বলেন, ‘যে ছেলেটির হাত ভেঙেছে বলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে দেখানো হচ্ছিল। আমাদের কাছে প্রমাণ আছে, গাড়ি দুর্ঘটনায় দুই তিন দিন আগে হার ভেঙেছিল ওর।’

এরপরই শ্যামাপ্রসাদকে তুলে এনে দিলীপ বলেন, ‘শ্যামাপ্রসাদেরও মূর্তি ভাঙা হয়েছিল এখানে আমরা আন্দোলন করেছিলাম। আমাদের মার খেতে হয়েছিল। তখন মমতাকে প্রতিবাদ করতে দেখিনি রাস্তায় হাঁটতে দেখিনি। শ্যামাপ্রসাদ কি মনিষীদের মধ্যে পড়েন না? ওদের কি আলাদা মনীষীদের আলাদা লিস্ট আছে? বিদ্যাসাগরকে অপমান, এর চেয়ে বেশি কেউ করেনি। এত নিচে নেমেছেন যে বিদ্যাসাগরকে নিয়ে রাজনীতি করছেন।’ এরপর সিপিএমের সঙ্গে তৃণমূলের তুলনা করে দিলীপ বলেন, আমরা সিপিএমকে জানতাম নিজেদের লোককে খুন করে তাঁর মূর্তি বানিয়ে তা নিয়ে রাজনীতি করত। এরা তার চেয়েও খারাপ। একজন মনীষীর মূর্তি ভেঙে তা নিয়ে রাজনীতি করছেন এটা এক ধরনের গুণ্ডা রাজনীতি। মমতাকে মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে মানতে আমি লজ্জাবোধ করি। ধিক্কার জানাই। কালকে কলকাতাতে বিশাল জনসমাগম হয়েছিল। উনি ভয় পেয়েছেন। বাঁচার জন্য বিষয়টিকে ঘুরিয়ে দেওয়ার জন্য এই ধরণের নোংরামি করেছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here