Parul

মহানগর ডেস্ক: উত্তরবঙ্গের দাবি নিয়ে জন বার্লা বা নিশীথ সরব হতেই পারেন তবে বিজেপির অবস্থান বাংলা ভাগের বিরুদ্ধে। এই নিয়ে কথা বললে কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের কাছে নালিশ জানাবে রাজ্য বিজেপি। উত্তরবঙ্গ পৃথক রাজ্য নিয়ে এভাবেই দলের নব্য মন্ত্রীদ্বয়কে সতর্ক করলেন রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ।

ads

সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, “বিজেপি বাংলা ভাগের বিরুদ্ধে। এটাই দলের অবস্থান।কেন্দ্রে মন্ত্রী হয়েও কেউ যদি এই কথা বলেন তবে আমাদের উপরতলায় তা জানাতে হবে”।
বাংলা ভাগের দাবির ফলে যে আখেরে দলের ভাবমূর্তি নষ্ট হচ্ছে এ দিনের বক্তব্যে কার্যত তাই শিকার করে নিলেন দিলীপ।

নির্বাচনী ফল বেরোনোর পরেই মমতা সরকারের বিরুদ্ধে উত্তরবঙ্গের প্রতি দীর্ঘদিনের বঞ্চনার অভিযোগ তুলে উত্তরবঙ্গকে আলাদা একটি রাজ্য বানানোর দাবিতে মুখর হন আলিপুরদুয়ারের সাংসদ জন বার্লা। যা নিয়ে শুরু হয় বিস্তর বিতর্ক। রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল বিজেপিকে বাংলা ভাগের চক্রান্তকারী বলে দোষারোপ করা শুরু করে। বিজেপির পক্ষ থেকে আধিকারিক ভাবে এই নিয়ে কোনো স্পষ্ট মন্তব্য না করা হলেও এর পরপরই রাঢ়বঙ্গ নামে আরো একটি পৃথক রাজ্যের প্রস্তাব দেন বিষ্ণুপুরেরর সাংসদ সৌমিত্র খাঁ।
প্রসঙ্গত সম্প্রতি উত্তরবঙ্গ পৃথকীকরণের মূল দাবিদার জন বার্লাকে কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী করেছে বিজেপি। আর এই নিয়ে বিজেপিকে নতুন আঙ্গিকে আক্রমন করেছে তৃণমূল। বাংলা ভাগের চক্রী হওয়ার জন্যই মন্ত্রিত্বের পুরস্কার কিনা তাই নিয়ে বিজেপিকে টুইটারে কটাক্ষ করেন তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্র। কলকাতার মেয়র তথা তৃণমূল নেতা ফিরহাদ হাকিম জন বার্লার মন্ত্রীত্ব নিয়ে বলেন “যারা বাংলাকে ভাগ করতে চায়। বাংলার মধ্যে বিভেদের রাজনীতি করে। তাদের মন্ত্রীত্ব নিয়ে খুশি হওয়ার কোনো কারণ নেই।”

আর এই কারণেই বাংলা ভাগের সাথে নিজেদের জড়িয়ে যাওয়া এড়িয়ে যেতেই নিজেদের অবস্থান স্পষ্ট করতে চাইছে বিজেপি এমনটা মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here