মহানগর ওয়েবডেস্ক: চিকিৎসক ও অন্যান্য পেশার মানুষদের আত্মত্যাগকে সম্মান জানাতে ব্যালকনিতে দাঁড়িয়ে হাততালি দেওয়া ভারতীয়দের অপর একটি আচরণই বুক ভেঙে দেওয়ার মতো। যেসব চিকিৎসকরা করোনার বিরুদ্ধে দিনের পর দিন লড়াই করে চলেছেন, তাদেরকেই নিজে পাড়া-প্রতিবেশীদের কাছে অসম্মানিত হতে হচ্ছে। কেউ বা হেনস্থা করছেন। বাড়িতে ঢুকতে দিচ্ছেন না করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ে আসার ভয়ে। সাধারণ মানুষের এই আচরণ এবার শুধরে নেওয়ার বার্তা দিল কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক।

প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদীর আবেদনে সাড়া দিয়ে সাধারণ মানুষ যা যা করেছিলেন, তা এবার কাজে রূপান্তরিত করার সময় এসেছে। এদিন এমনটাই বলা হয় কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের তরফে। যে সমস্ত কর্মীরা করোনার বিরুদ্ধে প্রথম সারিতে দাঁড়িয়ে লড়াই করছেন তাদের যোগাযোগ্য সম্মান নিজেদের আচরণের মাধ্যমেই দেওয়ার আবেদন জানায় স্বাস্থ্যমন্ত্রক।

‘দয়া করে আপনাদের হাততালি এবং প্রদীপের আলো কাজেও দেখান। যদি একজন চিকিৎসা কর্মীর সঙ্গেও খারাপ ব্যবহারের ঘটনা ঘটে তবে তা গোটা চিকিৎসক মহলকে হতাশ করে দেওয়ার জন্য যথেষ্ট। যারা এই রোগকে শেষ করার জন্য লড়ছেন তারাই হতাশ হয়ে গেলে এই রোগের বিরুদ্ধে লড়া যাবে না’। এদিন সাংবাদিক বৈঠকে এমনটাই বলেন স্বাস্থ্য দপ্তরের অতিরিক্ত সচিব লভ আগরওয়াল। বিগত কয়েকদিন যাবত চিকিৎসকরাও এই রোগে আক্রান্ত হওয়ার ঘটনা দেখা যেতেই নাগরিকদের একাংশের মধ্যে অভব্য আচরণ করার প্রবণতা দেখা গিয়েছে। সেই অভ্যাসকেই এদিন একহাত নেয় কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here