kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: দেশজুড়ে নির্বকারে চলছে পশুদের ওপর অত্যাচার। খাতায় কলমে আইনি-বিধি থাকলেও তাকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে দোষীরা। ইদানীংকালে বেসরকারি কিছু সংস্থার তাগিদে প্রশাসন খানিকটা সক্রিয় হলেও বজায় রয়েছে পথ পশুদের ওপর অত্যাচার। তেমনই এক নমুনা দেখা গেল, মহারাষ্ট্রের রাস্তায়। কিছুদিন আগে মহারাষ্ট্রের খারাগরে রাস্তার একটি মেয়ে কুকুরকে যৌন হেনস্থা ও ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। বিষয়টি স্থানীয় এক পশুপ্রেমীর নজরে আসতেই তিনি খবর দেন আন্তর্জাতিক পশুপ্রেমী সংস্থা পেটা(পিপলস ফর দ্য এথিক্যাল ট্রিটমেন্ট অফ অ্যানিম্যাল)-র জাতীয় বিভাগকে।

পেটা-র তৎপরতায় উদ্ধার করা হয় নির্যাতিত সারমেয়টিকে। স্থানীয় থানায় এফআইআর দায়ের হয় ঘটানাটি নিয়ে। তদন্তে নেমে পুলিশ জানতে পারে, অভিযুক্ত মারাঠি বাসিন্দা বিজয় রাঙ্গারে আদতে বিকৃতকামী। নবী মুম্বই ও পনভেল থানার পুলিশ যৌথ অভিযান চালিয়ে গ্রেফতার করে ধর্ষণে অভিযুক্ত ওই ব্যক্তিকে। ৩৭৭ ধারায় তার নামে মামলা দায়ের করে পুলিশ। পুলিশ সূত্রের খবর, দোষ প্রমাণ হলে ১০ বছরের সাজা হতে পারে ধর্ষণকারীর।

পেটা আধিকারিকের তরফে জানান হয়েছে, ঘটনায় অভিযুক্ত বিজয় একপ্রকার রিপিট অফেন্ডার। ওই ব্যক্তির নামে ইতিপূর্বেই পেটার কাছে অনেক অভিযোগ রয়েছে। এদিন স্থানীয় এক পশুপ্রেমীর তাগিদে উদ্ধার করা যায় সারমেয়টিকে। অভিযুক্তের নামে এফ আই দায়ের হয় থানায়। পুলিশের যৌথ প্রচেষ্টায় গ্রেফতার করা হয়েছে অভিযুক্তকে।

দেশজুড়ে ক্রমবর্ধমান পশু নিগ্রহের ঘটনা, কোথায় বিষ খাইয়ে মেরে ফেলা হচ্ছে, কিংবা বেধড়ক পিটিয়ে খুন করা হচ্ছে অবলা প্রাণীদের। তা নিয়ে পশুপ্রেমী সংগঠন গুলির পাশাপাশি সরব হয়েছেন নেটিজনেরা। এক পশুপ্রেমীর মতে, অনেক ক্ষেত্রেই এমন দেখা গিয়েছে, এ ধরনের অভিযোগ নিয়ে থানায় গেলে পুলিশের ভূমিকা কার্যত ‘ঠুঁটো জগন্নাথ’-এর মত হয়। অন্যদিকে অপরাধী দিব্বি গায়ে হাওয়া লাগিয়ে ঘুরে বেরায়। অন্যদিকে নিশব্দে প্রাণ হারায় অবলা জীবগুলি। পশুরাও মানুষের মতো অধিকার কেন ভোগ করবে না। এ নিয়ে ইতিমধ্যেই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে সকল মহলে। অত্যাচারীদের সাজা প্রসঙ্গে প্রশাসনের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে নানা মহলে। তাদের কথায়, মহারাষ্ট্রে কুকুর ধর্ষণের ঘটনায় এক নয়া নজির গড়ছে মহারাষ্ট্র পুলিশ। এর ফলে দেশ জুড়ে পশুদের উপর অত্যাচারের ঘটনা কিছুটা হলেও কমবে। সজাগ হবেন সাধারণ মানুষ।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here