নিজস্ব প্রতিবেদক, বালুরঘাট: এনআরএস হাসাপাতালে একসঙ্গে ষোলোটি কুকুর ছানাকে পিটিয়ে মারার ঘটনায় শহর ছাড়িয়ে জেলা সর্বত্র প্রতিবাদের ঝড় ওঠে৷ অভিযুক্ত দুই নার্সিং পড়ুয়াকে গ্রেফতার করে পুলিশ৷ সোশ্যাল মিডিয়া জুড়েও প্রতিবাদে সোচ্চার হন মানুষ৷ এই ঘটনার পরেও রাজ্য জুড়ে এইভাবে সারমেয় নিগ্রহের ঘটনার জলজ্যান্ত ছবি চোখে পড়েছে একাধিকবার৷ পশুপ্রেমী সংস্থাগুলি সারমেয়দের রক্ষায় সক্রিয়ভাবে কাজ করলেও রোখা যায়নি এই ধরণের নিন্দনীয় অমানবিক ঘটনা৷ যার প্রমাণ মিলল আরও একবার৷ আর এই ঘটনার পর প্রশ্ন একটাই পশু বলে কি তার প্রাণ নেই৷

মঙ্গলবার সকাল ১০ টা বাজে৷ চিঙ্গিশপুর থেকে বালুরঘাট গামী বাসে এক অমানবিক ঘটনার দৃশ্য চোখে পড়ে এলাবাসীর। যা একেবারেই এড়িয়ে যাওয়ার মতো ছিল না৷ সারমেয়দের রক্ষায় যখন এত প্রচার হয়েছে তারপরেও দিনের আলোয় দেখা গেল চিঙ্গিশপুর লাইনে যাত্রীবাহী একটি বাসের পিছনের রডে একটি কুকুরকে দড়ি দিয়ে বেঁধে টেনে হিচড়ে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। স্থানীয় বাসিন্দা ঘটনাটি দেখা মাত্রই, বাসটিকে আটক করে প্রতিবাদ জানায়।

প্রতিবাদ করাতেই কোন উত্তর না মেলায় বালুরঘাট পশুপ্রেমী সংস্থা বালুরঘাট থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। প্রশাসনের সহায়তায় (WB 610305) বাসের চালকের উপযুক্ত শাস্তির দাবি জানান। প্রশাসন দোষীদের বিরুদ্ধে কি ব্যবস্থা নেয় এখন তাই দেখার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here