mamata banerjee corona

বিশেষ প্রতিনিধি, কলকাতা: রাজ্য সরকার চলতি অর্থবর্ষের মার্চ মাসের মধ্যে রাজ্যের ৫৫ লক্ষ পরিবারের কাছে পানীয় জলের সংযোগ পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা নিয়েছে।সম্প্রতি  মুখ্যসচিব রাজীব সিনহা এই বিষয়ে এক পর্যালোচনা বৈঠক করেন। সেখানেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।এই লকডাউনের মধ্যে গত ২ মাসে ১ লক্ষ ৪৫ হাজার বাড়িতে পানীয় জলের সংযোগ দেওয়া হয়েছে বলে নবান্ন সূত্রের খবর।

উল্লেখ্য মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে ২ কোটি বাড়িতে পরিস্রুত পানীয় জলের সংযোগ পৌঁছে দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন ।  রাজ্যের  প্রতিটি ঘরে জলের সংযোগ পৌঁছে দিতে মুখ্যমন্ত্রী চলতি বছরের ৬ জুলাই ‘‌জল স্বপ্ন’প্রকল্পের সূচনা করেন। প্রকল্পের বাজেট মোট ৫৮ হাজার কোটি টাকা। নবান্ন সূত্রে জানা গিয়েছে, বর্তমান দৈনিক জল সংযোগের লক্ষ্যমাত্রা বাড়িয়ে ২০ হাজার করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

অন্যদিকে চাষের জমিতে জল সেচের জন্য বিদ্যুতের খরচ ও পরিবেশ দূষণের হার কমাতে রাজ্য সরকার সৌরশক্তি চালিত পাম্প ব্যবহারের উপর জোর দিচ্ছে। ইতিমধ্যেই দক্ষিণবঙ্গের বাঁকুড়া, বীরভূম, ঝাড়গ্রাম, পুরুলিয়া ,উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা পশ্চিম মেদিনীপুর, বর্ধমান এবং উত্তরবঙ্গের দার্জিলিং এবং জলপাইগুড়িতে  এ ধরনের এক হাজার সৌরশক্তি চালিত পাম্প বসানো হয়েছে বলে জল সম্পদ উন্নয়ন দপ্তরের তরফে জানানো হয়েছে।

পদ্ধতিগত কারণে উত্তরবঙ্গে এই ধরনের পাম্প বসানোর খরচ তুলনামূলক কম হওয়ায় সেখানকার জেলাগুলিতে সৌরশক্তি চালিত পাম্প ব্যবহার বৃদ্ধির জন্য উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে। জলপাইগুড়ি জেলাতে এই ধরনের পাম্প ব্যবহার করে প্রায় ২ হাজার হেক্টর জমিকে সেচ সেবিত করে তোলা হয়েছে। দ্বিতীয় স্থানে থাকা বর্ধমান জেলায় ১২ হেক্টরের বেশি এবং ঝাড়গ্রামে ৫৯১ হেক্টর জমি কে এই পদ্ধতিতে সেচের আওতায় আনা হয়েছে। সৌরশক্তিচালিত পাম্প এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় সহজে নিয়ে যাওয়া সম্ভব বলে এতে সেচের খরচ তুলনামূলকভাবে অনেক কম হয় বলে দপ্তরের তরফ এ দাবি করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here