লাল হলুদ ছটায় বর্ণহীন রেনবো, লিগ টেবিলে পিয়ারলেসকে ধাওয়া ইস্টবেঙ্গলের

0
246
kolkata bengali news

সায়ন মজুমদার: অবশেষে মিটল লাল হলুদ সমর্থকদের হা হুতাশ। প্রায় হাফ ডজন ম্যাচ খেলার পর অবশেষে গোল পেলেন স্ট্রাইকার মার্কোস এসপাদা, সে যতই পেনাল্টি থেকে হোক, গোল তো পেলেন। আর তার একমাত্র গোলেই তো তিন পেয়ে লিগ টেবিলে দুই নম্বরে উঠে এল ইস্টবেঙ্গল। আর অবশ্যই উল্লেখ করতে হয় সৌমিক দে ও ইস্টবেঙ্গল সমর্থকদের কথা। আজ বিপক্ষ কোচ হিসেবে মাঠে নামলেও ঘরের ছেলেকে যোগ্য সম্মান দিলেন সমর্থকরা। ম্যাচ শেষেও তাই কোলাডো, খুয়ান মেরার বদলে সৌমিকের নামে উঠল জয়ধ্বনি।

প্রতি ম্যাচের মতো এদিনও দলে পরিবর্তন করেছিলেন আলেহান্দ্রো। এদিন মোট ছয়টি পরিবর্তন করেছিলেন তিনি। বোরহা, কমলপ্রীত, কোলাডো, ডিডিকা, বিদ্যাসাগর ও মেহতাবকে জায়গায় দলে ফেরেন আশীর, মার্তি, সামাদ, রোহলুপুইয়া, মার্কোস ও রোনাল্ডো। কদিন আগেই কল্যাণীতে মোহনবাগানের বিরুদ্ধে কোচিং অভিষেক হয়েছিল সৌমিক দের। সেই ম্যাচে অসাধারণ ফুটবল খেলে মোহনবাগানকে প্রায় আটকে দিয়েছিল রেনবো। এদিন অবশ্য সেই খেলা অন্তত প্রথমার্ধে খেলতে পারেনি রেনবো। দ্বিতীয়ার্ধে বেশ লড়াই করলেও আক্রমণ সেইভাবে দানা বাধেনি সৌমিক দের দলের।

খেলা শুরুর কিছুক্ষন আগে ঝেঁপে বৃষ্টি নামায় এদিন স্বাভাবিক ভাবেই মাঠের অবস্থা বেশ খারাপ হয়ে যায়। কাদা মাঠে বলের নিয়ন্ত্রণ রাখতে বেশ সমস্যায় পড়ছিলেন দুই দলের খেলোয়াড়রা। এরই মাঝে মিনিট তিনেকের মাথায় দুরন্ত শট নেন পিন্টু। সেই যাত্রায় রেনবো কিপার অঙ্কুর ভালো সেভ করেন। এর পাঁচ মিনিটের মধ্যেই খুয়ান মেরার লং বল বিপক্ষ বক্সে পেয়েও তা বাইরে মারেন মার্কোস। এরপর আরও একটি করে সুযোগ মিস করেন তিনি ও খুয়ান মেরা। যে সময় মনে হচ্ছিল প্রথমার্ধ হয়তো গোলশূন্য ভাবে শেষ হবে ঠিক সেই সময়েই পেনাল্টি পেয়ে যায় ইস্টবেঙ্গল। ৩৫ মিনিট নাগাদ নিজেদের বক্সে রোনাল্ডোকে ফেলে দেন রেনবোর সুজয় দত্ত। স্পট কিক থেকে অবশেষে ইস্টবেঙ্গলের হয়ে প্রথম গোলটি করেন স্প্যানিশ স্ট্রাইকার মার্কোস। দলের হয়ে প্রায় সাতটি ম্যাচ খেলার পর অবশেষে স্কোরশিটে নাম তুললেন তিনি। যদিও এরপরেও আরো বেশ কিছু সুযোগ মিস করেন তিনি।

প্রথমার্ধে যে হারে আক্রমণের সুযোগ তৈরি করছিল লাল হলুদ, আশা করা হয়েছিল দ্বিতীয়ার্ধেও সেই ধারা বজায় থাকবে। কিন্তু বিরতির পর থেকে পাল্টা আক্রমণ শুরু করে রেনবো। চাপ বাড়ছে দেখে পরপর তিনটি পরিবর্তন করলেন আলেহান্দ্রো। মার্কোস, পিন্টু ও নাওরেমকে বসিয়ে মাঠে আনলেন কোলাডো, ব্রেন্ডন ও ডিডিকাকে। আর তাতেই ম্যাচে ফেরে লাল হলুদ। অবশ্য মাঝে সাঝে পাল্টা ছোবল মারার চেষ্টা চালিয়ে যেতে থাকে সৌমিক দের দল। অবশ্য ফেলিক্স চিডির একটি শট বারে লাগা ছাড়া আর সেইভাবে পজিটিভ আক্রমণ করতে পারেনি রেনবো।

ইস্টবেঙ্গলের প্রথম একাদশ: লালথামুইয়া, আশীর, মার্তি, অভিষেক, সামাদ, নাওরেম, রোহলুপুইয়া, খুয়ান মেরা, পিন্টু, মার্কোস ও রোনাল্ডো

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here