ডেস্ক: দেশের প্রধানমন্ত্রীর ভক্ত হওয়ায় দোষের কিছু নেই। কিন্তু ভক্তি যখন মাত্রাতিরিক্ত হয়ে যায় তখন মাঝে মধ্যে বিপাকেও পড়তে হয়। বিশেষ করে এই ভোটের মরসুমে। যেমন নাস্তানাবুদ হতে হচ্ছে উত্তরাখণ্ডের জগদীশ চন্দ্র যোশীকে।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ‘জবরা ফ্যান’ উত্তরাখণ্ডের যোশীখোলা গ্রামের বাসিন্দা জগদীশ। বিয়ে ঠিক করেছিলেন নিজের ছেলের। কিন্তু বিয়ের আমন্ত্রণপত্রে উপহার নিয়ে আসতে সরাসরি বারণ করে দেন তিনি। উল্টে মোদীর জন্য ভোট চেয়ে বসেন পেশায় গোপালক এই ব্যক্তি। ব্যাস, এখানেই ভুল হয়ে যায় তাঁর। ইদানিং বেশ কিছু জায়গায় এই ধরনের ঘটনা ঘটেছে। খুব স্বাভাবিকভাবেই যা দেখে অনুপ্রেরণা পেয়েছিলেন জগদীশ। কিন্তু বিয়ের কার্ডে মোদীর জন্য ভোট চেয়ে সরাসরি নির্বাচন কমিশনের তলব পেয়ে বসলেন তিনি। চিঠি দিয়ে ডেকে পাঠানো হয়েছে তাঁকে।

 

গত ১০ মার্চ ঘোষণা হয় সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনের তারিখ যার পর থেকেই লাগু হয়ে যায় আদর্শ আচরণ বিধি। সেই বিধি ভঙ্গের অভিযোগেই নোটিশ পাঠিয়ে তাঁকে দেখা করতে বলেছে কমিশন। বিয়ের কার্ডে তিনি ছাপিয়েছিলেন, ‘উপহার আনবেন না। তবে বর-বধূকে আশীর্বাদ দেওয়ার পূর্বে ১১ এপ্রিল দেশের স্বার্থে মোদীকে অবশ্যই ভোট দেবেন।’ প্রসঙ্গত, আগামী ১১ এপ্রিল প্রথম দফায় ভোটগ্রহণ শুরু হবে। বলাই বাহুল্য এ কাজ না জেনে বুঝেই করেছিলেন তিনি। কমিশনের নোটিশ পাওয়ার পরই তাই ক্ষমাও চেয়ে নিয়েছেন জগদীশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here