kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি: নেশার টাকা না পেয়ে বৃদ্ধ মা-বাবাকে মারধরের অভিযোগ উঠল ছেলের বিরুদ্ধে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় রানাঘাট মহকুমা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন দম্পতি । ন্যক্কারজনক ঘটনাটি ঘটেছে নদিয়ার রানাঘাটের রামকৃষ্ণপল্লিতে। পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, ছেলে সুমন দাস দীর্ঘদিন ধরে বাড়ির গয়না থেকে নগদ টাকা-সহ নানান সামগ্রী বিক্রি করে নেশা করে। শুধু তাই নয়, সে জুয়াও খেলে। আর এইভাবে সে টাকা উড়িয়ে চলে।

হাতে টাকা না থাকলে সে বাবা-মায়ের কাছে হাত পাতে। এদিন সে আবার বাবার কাছে টাকা চায়। বাবা টাকা দিতে চাওয়ায় সে বাড়ি বিক্রি করতে বলে। আর এই জন্য সে বাবাকে চাপ দিতে থাকে। কথা না শোনায় সুমন দাস এরপর চড়াও হয় দিদি ও বৃদ্ধ বাবা-মায়ের ওপর। তাদের সবাইকে সে বেধড়ক মারধর করে।তার বাবা সদানন্দ দাস পেশায় গৃহশিক্ষক ছিলেন। ফলে সবস্ম্য ছেলের দাবি মেটাটে পারতেন না। আর এইজন্য তাদের ওপর চলত অত্যাচার।

বাবা ও মা দু’জনেই ছেলের হাতে মার খেয়ে এখন আশঙ্কাজনক অবস্থায় ভর্তি রানাঘাট মহকুমা হাসপাতালে। শুধু মারধর নয়, মাকে ঘরে আটকে রেখে চেয়ারের সঙ্গে বেঁধে রাখে সে। মায়ের বিছানায় আগুন লাগিয়ে দেয়। পুড়িয়ে দেয় স্বাস্থ্যসাথী কার্ড-সহ নানা জরুরি কাগজপত্র। ছেলের কাছে কিল-চড়। লাথি-ঘুষি ছাড়াও অন্যান্য ভারী বস্তু দিয়ে মারধর খেয়ে এখন বৃদ্ধ দম্পতি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। অভিযোগ পেয়ে রানাঘাট থানার পুলিশ অভিযুক্ত ছেলেকে গ্রেফতার করে আদালতে পাঠায়। এলাকার লোকজন এমন ছেলের কঠোর শাস্তি দাবি করেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here