ডেস্ক: রাজ্যবাসী বরাবরই অভ্যস্ত এপ্রিল কিংবা মে মাসে পঞ্চায়েত নির্বাচন দেখতে। পঞ্চায়েত যুদ্ধের লক্ষ্যে মাঠে নেমে পড়লেও ভোট কবে হবে তা নিয়ে এখনও রা কাড়েনি শাসকদল। তবে গত বুধবার বীরভূমের বোলপুরে প্রশাসনিক সভা করতে গিয়ে পঞ্চায়েত নির্বাচনের কিছুটা আভাষ দিয়েছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর সম্ভাবনা অনুযায়ী, আগস্ট মাসের আগেই হয়ে যেতে পারে পঞ্চায়েত নির্বাচন। ভোটের দিনক্ষণ নির্ধারিত না হলেও পঞ্চায়েত ভোটের প্রস্তুতিতে উঠে পড়ে লাগল নির্বাচন কমিশন। রাজ্যে নির্বাচন করানোর জন্য নির্বাচনের খরচ বাবদ রাজ্য সরকারের কাছ থেকে ৩৬০ কোটি টাকা দাবি করল তাঁরা। তবে এই বিপুল পরিমান টাকা রাজ্য সরকার দিতে সম্মত হয়েছে কিনা এ বিষয়ে স্পষ্ট করে কিছু এখনও জানা যায়নি।

এদিন পঞ্চায়ের নির্বাচন উপলক্ষ্যে রাজ্যের জেলা শাসক ও পুলিশ সুপারদের সঙ্গে বৈঠক করেন নির্বাচন কমিশনের আধিকারিকরা। জানা গিয়েছে, এবারের পঞ্চায়েত নির্বাচনের প্রস্তুতিতে কোনও খামতি রাখতে চাইছে না নির্বাচন কমিশন। এই বৈঠকে আলাদা করে দক্ষিনবঙ্গের জেলা শাসক ও পুলিশ সুপারদের সঙ্গে কথা বলেন রাজ্য নির্বাচন কমিশনার এ কে সিং। সেখানে ভোটের বুথে হিংসা ও আইনশৃঙ্খলার দিকে কড়া নজর রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে পুলিশ আধিকারিকদের। স্পষ্ট করে আধিকারিকদের বলা হয়েছে, ভোটের সময় কোনও ছোট ঘটনা যেন বড় আকার ধারন করতে না পারে সেদিকে খেয়াল রাখার জন্য। রাজ্যের সে সমস্ত বুথগুলি স্পর্শকাতর তার যেন তালিকা তৈরি করা হয় এবং সেই তালিকা যেন নির্বাচন কমিশনকে পাঠানো হয়। একইসঙ্গে, ওই সমস্ত এলাকাগুলিতে পুলিশের তরফে যেন বাড়তি নজরদারি চালানো হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here