ডেস্ক: ২২৪ সদস্যের কর্নাটক বিধানসভায় বর্তমান সরকারের মেয়াদ শেষ হচ্ছে ২৮ মে। এরইমধ্যে কর্নাটকে বেজে গেল ভোটের বাজনা। নির্বাচন কমিশনের তরফে জানিয়ে দেওয়া হল আগামী ১২ মে ভোট হবে দক্ষিণের রাজ্য কর্নাটকে এবং ১৫ মে হবে ভোটের ফল ঘোষণা।

এদিন মুখ্য নির্বাচন কমিশনার ওমপ্রকাশ রাওয়াত, নির্বাচন কমিশনার সুনীল আরোরা ও অশক লাসবা জানিয়েছেন, কর্নাটক বিধানসভা নির্বাচনের জন্য নোটিশ জারি হবে ১৭ এপ্রিল মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ২৪ এপ্রিল এবং মনোনয়নপত্র ফেরত নেওয়ার শেষ দিন ২৭ এপ্রিল। একইসঙ্গে ভোট হবে ১২ মে এবং ফল ঘোষিত হবে ১৫ মে।

বর্তমানে সাড়া দেশজুড়ে তাদের বিজয় রথের ঘোড়া ছোটাচ্ছে গেরুয়া বাহিনী। সম্প্রতি, গেরুয়া ঝড়ে ধুলিস্যাত হয়ে গিয়েছে উত্তর-পূর্বের তিন রাজ্যের বিরোধীরা। বলার অপেক্ষা রাখে না, কর্নাটকেও মূল যুদ্ধ হতে চলেছে বিজেপি এবং কংগ্রেসের মধ্যে। কর্নাটকে ক্ষমতাসীন দল বর্তমানে কংগ্রেস। লিঙ্গায়েত সম্প্রদায়ের পৃথক ধর্মীয় গোষ্ঠীর স্বীকৃতি দিয়ে তাদের ভোট পকেটে পোরার কৌশল নিয়েছে কংগ্রেস। অন্যদিকে, বিজেপি আবার হিন্দু ধর্মকে ভাগ করার চেষ্টা চলছে বলে অভিযোগ তুলেছে কংগ্রেসের বিরুদ্ধে। সব মিলিয়ে ভোটযুদ্ধে কর্নাটকে দামামা বাজাতে চলেছে কংগ্রেস এবং বিজেপি।

অন্যদিকে, নির্বাচন কমিশনের আনুষ্ঠানিক ঘোষণার আগেই টুইটারে কর্নাটক বিধানসভার ভোট গণনার দিন তারিখ জানিয়ে বিতর্কে জড়ান বিজেপি আইটি শেলের প্রধান অমিত মালম্য। ভোটের দিন তারিখ নির্বাচন কমিশনের তরফে জানানোর আগেই, অমিত জানিয়ে দেন ভোট গ্রহণ হবে ১২ মে এবং গণনা হবে ১৮ মে। যদিও তাঁর দেওয়া গণনার তারিখ ভুল থাকলেও, নির্বাচন কমিশনের আগে তাঁর এই ধরনের বিবৃতি নিয়ে শুরু হয়েছে বিতর্ক। যদিও এই ঘটনার তদন্তের আশ্বাস দিয়েছেন নির্বাচন কমিশনার। এদিন ওমপ্রকাশ রাওয়াত বলেন, ‘নির্বাচন কমিশনের কিছু বিষয় ফাঁস হয়ে যেতে পারে। কমিশন এব্যাপারে যথাযোগ্য ব্যবস্থা নেবে।