bengali news

 

মহানগর ডেস্ক: তারকেশ্বরে ভোট প্রচারে গিয়ে তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন, লক্ষ্য রাখতে হবে সংখ্যালঘুদের ভোট ভাগ যেন না হয়৷ আইএসএফ নেতা আব্বাস সিদ্দীকিকে ’চ্যাংড়া’ এবং বিজেপির থেকে টাকা খেয়ে রাজনীতির ময়দানে জলঘোলা করতে নেমেছে বলেও তোপ দাগেন মমতা৷ পাশাপাশি মুসলিম ভোটারদের একজোট হয়ে তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থীদেরকে জেতানোর ডাক দিয়েছিলেন তিনি৷ এসব বিতর্কিত বিষয় উল্লেখ করে কেন্দ্রীয় সংখ্যালঘু উন্নয়নমন্ত্রী মুক্তার আব্বাস নাকভী নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ দায়ের করলে আজ বুধবার সন্ধ্যা ৮টা নাগাদ কমিশন মমতাকে ইমেল করে জরুরি নোটিশ পাঠায়৷

আগামী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে জবাব এবং ব্যাখ্যা দিতে বলা হয়েছে মমতাকে৷ অন্যথায় তাঁর বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার কথাও জানিয়েছে কমিশন৷ নির্বাচন কমিশনের তরফে মমতাকে পাঠানো নোটিশে বলা হয়েছে, ধর্ম বা জাতপাতের ভিত্তিতে কখনও ভোট চাওয়া যায় না৷ ভোটের জন্য মন্দির-মসজিদে গিয়েও আবেদন করা যায় না৷ তাই নির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে তারকেশ্বরে মমতার বক্তব্যের ভিডিয়ো কমিশন খতিয়ে দেখার পর এই নোটিশ পাঠাল৷ যাতে স্পষ্ট বলা হয়েছে, আপনি নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন করেছেন৷ এ ছাড়াও জনপ্রতিনিধিত্ব আইনের ১২৩(৩) এবং ৩(এ) ধারাও লঙ্ঘিত হয়েছে৷

উল্লেখ্য, গতকাল মঙ্গলবার রাজ্যে ভোট প্রচারে এসে স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এ ব্যাপারে আলোকপাত করেছিলেন৷ তিনি অভিযোগ করেছিলেন, মমতা মুসলিমদের ভোট চাইছে, মুসলিমদেরকে মমতা বলছে আমাকে বাঁচাও৷ আমি যিদ হিন্দুদেরকে এভাবে আবেদন করতাম তাহলে কেলেঙ্কারি হয়ে যেত৷ এরপরই মোদি বলেন, জানি না মমতাকে এ জন্য নির্বাচন কমিশন কোনও নোটিশ পাঠিয়েছেন কিনা৷ একথা বলার ২৪ ঘণ্টা পরেই দিল্লি থেকে নোটিশ পৌঁছে গেল মমতার কাছে৷ তবে ভোট চলাকালে এই ব্যস্ততার মধ্যে তৃণমূলনেত্রী কবে জবাব দেন, কী জবাব দেন, কী ব্যাখ্যা দেন বা আদৌ জবাব দেন কিনা, তা জানার জন্য কাল এবং পরশু অপেক্ষা করতে হবে৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here