national news

নিজস্ব প্রতিবেদক, কলকাতা: আসন্ন পুরসভা নির্বাচন অবাধ ও শান্তিপূর্ণ করার জন্য রাজ্য নির্বাচন কমিশনকে প্রয়োজনীয় সব পদক্ষেপ নিতে বললেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়। ভোটে অংশ নেওয়া সব রাজনৈতিক দল যাতে কমিশনের কাছে সমান গুরুত্ব পায় তাও নিশ্চিত করার ওপর জোর দিয়েছেন তিনি।

রাজ্যপালের তলবে বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজভবনে যান রাজ্য নির্বাচন কমিশনার সৌরভ দাস। সঙ্গে ছিলেন কমিশনের সচিব নীলাঞ্জন শান্ডিল্য। প্রায় মিনিট ৪৫ ধরে রাজ্যপালের সঙ্গে ভোট নিয়ে আলোচনা করেন তারা। এরপর রাজভবনের তরফে জানানো হয়, শান্তিপূর্ণভাবে এবারের পুরভোট সম্পন্ন করতে কমিশন কী ব্যবস্থা নিয়েছে, তা জানতে চেয়েছিলেন রাজ্যপাল। ভোট প্রক্রিয়ায় মোট পাঁচটি বিষয়ের ওপর জোর দিয়েছেন তিনি। প্রথমত রাজ্যপাল অবাধ ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন পরিচালনা করতে বলেছেন নির্বাচন কমিশনারকে। বিগত পঞ্চায়েত নির্বাচনের পুনরাবৃত্তি যেন পুর ভোটে না হয় তা সুনিশ্চিত করতে বলেছেন। ভোটের দিন রাজ্য সরকারের সঙ্গে আলোচনা করে স্থির করা হলেও তার আগে বিরোধীদের সঙ্গে আলোচনা করতে হবে। তাদের মতামত গুরুত্বপূর্ণ। সংবিধানের বিধি মেনেই যাতে ভোট প্রক্রিয়া চলে তার ওপর গুরুত্ব দিয়েছেন ধনকড়।

রাজ্য নির্বাচন কমিশনের তরফেও অবশ্য মৌখিক ভাবে অবাধ ভোট করতে সব রকম পদক্ষেপ নেওয়ার আশ্বাস দেওয়া হয়েছে। সৌরভ বাবুর তরফে রাজ্যপালকে জানানো হয়েছে আগামী ৪ঠা মার্চ সব জেলার জেলাশাসকদের সঙ্গে বৈঠক করে প্রয়োজনীয় সবরকম নির্দেশ দিয়ে দেওয়া হবে। সাধারণ মানুষ এবং রাজনৈতিক দলগুলোর অভাব অভিযোগ শুনতে মার্চের দ্বিতীয় সপ্তাহ থেকেই চালু হয়ে যাবে গ্রিভ্যান্স সেল।

এর আগে পঞ্চায়েত ভোট এবং লোকসভা ভোটে রাজ্যে অশান্তির পরিবেশ ছিল বলে মনে করেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়। পুরভোট অবাধ ও সুষ্ঠুভাবে করতে রাজ্য নির্বাচন কমিশনের ভূমিকাই সর্বোচ্চ বলে তিনি মনে করেন। জনগণের অবাধ, স্বচ্ছ ভোটদানের প্রক্রিয়া নিশ্চিত করতে এবং প্রতিটি রাজনৈতিক দলের প্রার্থীদের যথাযথ নিরাপত্তার উপরে তিনি জোর দিয়েছেন।

এদিকে জাতীয় নির্বাচন কমিশন এদিনই চূড়ান্ত ভোটার তালিকা প্রকাশ করেছে। যাতে নতুন করে ২০ লক্ষ ৬৯ হাজার জনের নাম রয়েছে। নাম বাদ গিয়েছে প্রায় ২ লক্ষ ৭৫ হাজার ভোটারের। কমিশন সূত্রে খবর, যাঁদের ঠিকানা স্থানান্তর অথবা ভোটার কার্ডে সংশোধনের জন্য কাজ চলছিল, তাঁদের অধিকাংশের নাম বাদ গিয়েছে। তবে কমিশনের আশ্বাস, নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে এই নামগুলিও জায়গা করে নেবে ভোটার তালিকায়। এর জন্য কেউ যাতে উদ্বিগ্ন না হন, সেই বার্তাও দিয়েছে কমিশন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here