FotoJet-2019-04-11T130436.320

ডেস্ক: বৃহস্পতিবার সকাল সাতটা থেকেই শুরু হয়ে গিয়েছে সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচন। এবার সাত দফায় এ রাজ্যে ভোট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কমিশন। সেই মতোই আজ প্রথম দফায় কোচবিহার ও আলিপুরদুয়ারে ভোটগ্রহণ চলছে। এরই মাঝে সাংবাদিক বৈঠক করে রাজ্যের মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক (অতিরিক্ত) সঞ্জয় বসু জানিয়ে দিলেন,

‘রাজ্যের দু’টি জেলার সব বুথেই শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ চলছে।’

এই রাজ্যের প্রথম দফার ভোটে অবশ্য শুরু থেকেই বিক্ষিপ্ত অশান্তির অভিযোগ উঠতে শুরু সকাল থেকেই। কোচবিহারের দিনহাটা সকাল থেকেই উত্তপ্ত তৃণমূল বনাম বিজেপি সংঘর্ষে। এদিন সকাল থেকে দুই শিবিরের মধ্যে অশান্তির খবর পাওয়া যায়। ভোটগ্রহণকে কেন্দ্র করে দুই শিবিরের মধ্যে সংঘর্ষ লাগে বলে জানা গিয়েছে। ঘটনায় এলাকা জুড়ে উত্তেজনা ছড়িয়েছে। তবে কোনও হতাহতের খবর মেলেনি।

 

পাশাপাশি, ইভিএম খারাপ থাকায় অনেকক্ষণ পর্যন্ত ভোটই দিতে পারেননি আলিপুরদুয়ারের তৃণমূল প্রার্থী দশরথ তিরকে। এছাড়াও দিনহাটার ভেটগুড়ি উচ্চ বিদ্যালয়ের বুথে আজ সকালে ইভিএম বিকল হওয়ায় ভোট শুরু হতে দেরি হয়। ৭/২৩৪ বুথে ভিভিপ্যাট কাজ না করায় বেশ কিছুক্ষণ বন্ধ ছিল ভোটগ্রহণ। এছাড়া মাথাভাঙার শীতলকুচির ১৩১ নম্বর বুথেও ইভিএম খারাপ হওয়ায় গোড়ার দিকে ভোট শুরু করা যাচ্ছিল না।

বেশ কিছু বুথে ইভিএম বিকল হয়ে যাওয়ায় ষড়যন্ত্রের গন্ধ পেয়েছেন রবীন্দ্রনাথ ঘোষ। এদিন কেন্দ্রীয় বাহিনীর সঙ্গে প্রকাশ্যে বচসায় জড়িয়ে পড়তে দেখা যায় তাঁকে। অন্যদিকে, বৃহস্পতিবার তুফানগঞ্জে বিজেপি কার্যালয়ে ভেঙে দেওয়ার অভিযোগ উঠল তৃণমূলের বিরুদ্ধে। জানা গিয়েছে, তুফানগঞ্জের ধলপলে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। তবে বিজেপির পক্ষ থেকে তোলা এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে তৃণমূল।

তবে এতকিছুর পরেও নির্বাচনে কোনওরকম গণ্ডগোল চোখে পড়েনি মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিকের। তিনি জানান, ‘কিছু জায়গায় অল্প গোলমালের খবর মিলেছে। তবে কেন্দ্রীয় বাহিনী ও পুলিশ পরিস্থিতি সামাল দিয়েছে। এছাড়া যেসব জায়গায় ইভিএম মেশিনে গোলযোগ হয়েছিল, সেগুলিরও দ্রুত পরিবর্তনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।’

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here