নিজস্ব প্রতিবেদক, বাঁকুড়া ও মেদিনীপুর: পরপর দুই জেলাতে হাতির তান্ডবের ঘটনায় হয়েছে ব্যপক ক্ষয়ক্ষতি। ঘটনা দুটি ঘটেছে বাকুঁড়া ও মেদিনীপুর জেলায়। প্রথম ঘটনাটি বাঁকুড়া সদর মহকুমার বড়জোড়া থানার বৃন্দাবনপুর বাজার এলাকায়। দ্বিতীয় ঘটনাটি ঘটেছে মেদিনীপুর সদর মহকুমার শালবনিতে। দুটি ঘটনায় মৃত্যুর কোন খবর না থাকালেও নষ্ট হয়েছে প্রচুর আনাজ এবং চাল-ডাল। খাবারের খোঁজে হাতির এই তাণ্ডবের ঘটনায় আমজনতার বন দফতরের বিরুদ্ধে।

বুধবার রাতে বাঁকুড়ার বড়জোড়া থানার বৃন্দাবনপুর এলাকায় আচমকাই ঢুকে পড়ে দুটি হাতি। ওই এলাকার বাজারে ঢুকে হাতি দুটি ভাঙচুর করে একটি দোকান। দোকানের যাবতীয় সামগ্রী খেয়ে ছড়িয়ে নষ্ট করে। পাশাপাশি স্থানীয় একটি আইসিডিএস কেন্দ্রের দরজা, জানালা ভেঙে ভেতরে থাকা চাল ডাল নষ্ট করে ওই হাতিরা। শেষপর্যন্ত স্থানীয় মানুষরা তাড়া করায় হাতি দুটি স্থানীয় জঙ্গলে চলে যায়। বুধবারের এই ঘটনার পর বৃহস্পতিবার সকাল থেকে বন দফতরের বিরুদ্ধে চরম উদাসীনতার অভিযোগ তুলে বৃন্দাবনপুর মোড়ে বাঁকুড়া সোনামুখী রাস্তা অবরোধ করেন স্থানীয় বাসিন্দারা। অবরোধকারীদের দাবি, ‘বন দফতরের উদাসীনতা পরিকল্পনাহীনতার কারনেই দিনের পর দিন বৃন্দাবনপুর জঙ্গলে হাতিগুলি ঘাঁটি গেড়ে আছে। প্রায় দিনই খাবারের খোঁজে হাতি গুলি হানা দিচ্ছে লোকালয়ে। ফসল থেকে রেশন সব কিছুই নয়ছয় করছে হাতিগুলি। এরপর ঘটতে পারে প্রানহানীর ঘটনাও। কিন্তু হাতি গুলিকে অন্যত্র সরানোর ব্যাপারে নির্বিকার বনদফতর।’

হাতির তাণ্ডবের দ্বিতীয় ঘটনাটি ঘটেছে মেদিনীপুর সদর মহকুমার শালবনির তিন-চারটি স্কুলে। মঙ্গলবার রাতে গোয়ালতোড়ের গোহালডাঙ্গা আইসিডিএসের কেন্দ্রে রাখা চালের বস্তা নিয়ে কেটে পড়েছে দাঁতালরা। পাশাপাশি এই ঘটনায় স্কুলে দাঁতাল দামালরা স্কুলের ছাউনী ভেঙে খেয়ে নিল মিড-ডে মিলের জন্য রাখা রেশন। এর আগেও এই মরশুমে প্রায় তিন চারটি স্কুলে হাতির তাণ্ডবে ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে মিড-ডে মিলের জন্য রাখা প্রচুর রেশন এবং অন্যান্য সামগ্রি। অন্যদিকে মেদিনীপুর সদর ব্লকের ঝরিয়া প্রাথমিক বিদ্যালয়, বাঘঘরা প্রাথমিক বিদ্যালয়, ঝরিয়া অঙ্গনওয়াড়ী কেন্দ্র এবং বাঘঘরা অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্র ভেঙে সেখান থেকে মিড ডে মিল এর চাল ডাল খেয়ে নিয়েছিল হাতির দল।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here