ডেস্ক: রাশিয়া বিশ্বকাপের মধ্যেই ক্লাবগুলি শুরু করে দিয়েছে দলবদল৷ বিশ্বকাপ সাঙ্গ, এবার তারকা-মহাতারকাদের নিয়ে শুরু হবে দড়ি টানাটানি৷ যদিও বিশ্বকাপের মাঝেই এই মরশুমে বিশ্ব ফুটবলের সবচেয়ে বড় দলবদলটি হয়ে গেছে৷ রিয়াল মাদ্রিদের সঙ্গে দীর্ঘ ৯ বছরের সম্পর্ক ছেদ করে জুভেন্তাসে যোগ দিয়েছেন বিশ্বের পয়লা নম্বর তারকা ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো৷ দ্বিতীয় চমকটি হতেই পারত নেইমার৷ বিশ্বের সবচেয়ে মূল্যবান ফুটবলারটির রিয়াল যাওয়ার গুঞ্জন শোনা গেলেও স্প্যানিশ জায়ান্ট ক্লাবটির পক্ষ থেকে তা অস্বীকার হয়েছে৷ এবার আলোচনায় সদ্যসমাপ্ত বিশ্বকাপের সবচেয়ে বড় চমক কিলিয়ান এমবাপে৷ এখন ২০ গণ্ডিতে পা রাখেননি, কিন্তু তারই মধ্যে তারকা হয়ে গেছেন এই ফরাসি স্ট্রাইকার৷ গোটা বিশ্বকাপে বিদ্যুৎ গতি নিয়ে ধারাবাহিক পারফরম্যান্স করার পর ফাইনালেও গোল পেয়েছেন তিনি৷ বিশ্বকাপের মাঝেই কথা শোনা যাচ্ছিল পিএসজি ছেড়ে নাকি রিয়াল মাদ্রিদে পাড়ি দেবেন এমবাপে। কিন্তু সেই সম্ভাবনায় জল ঢেলে দিলেন এমবাপে নিজেই৷

রাশিয়া বিশ্বকাপে সেরা ‘সেরা উদীয়মান ফুটবলার’-এর সম্মান পেয়েছেন এমবাপে৷ পেলের পর দ্বিতীয় সর্বকনিষ্ঠ খেলোয়াড় হিসেবে বিশ্বকাপ ফাইনালে গোল করার রেকর্ড গড়েছেন ১৯ বছরের এমবাপে। কেরিয়ারের যেন মধ্য গণণে রেয়েছেন তিনি৷ সেই জায়গায় দাঁড়িয়েও রিয়াল মাদ্রিদের সঙ্গে তাঁকে জড়িয়ে গুঞ্জনও শুরু হয়ে গেছে। আসলে বিশ্বকাপের সেরা ফুটবলারদের নিজেদের দিকে টেনে নেওয়ার একটা পুরনো অভ্যাস রয়েছে স্প্যানিশ ক্লাবটির৷ কিন্তু ফ্রেঞ্চ ফরোয়ার্ড রিয়াল প্রসঙ্গ উঠতেই স্পষ্ট করে দিয়ে বলেছেন, ‘আমি পিএসজিতে আছি, এবং পিএসজির সঙ্গেই থাকছি। আমার কেরিয়ার সবেমাত্র শুরু হল।’ এরপর অনেকেই মজা করে বলতে শুরু করেছেন, এমবাপের এমন বক্তব্যের পর রিয়াল প্রেসিডেন্ট ফ্লোরেন্তিনো পেরেজকে চেক বইটা সম্ভবত পকেটেই রেখে দিতে হবে।

এদিকে, ফাইনালে গোল পেয়ে দারুণ খুশি এমবাপে৷ তিনি বলেন,‘আমি সব সময় নিজের মতো করেই খেলি৷ মাঠে নেমে ফুটবলটাকে উপভোগ করি৷ ফাইনালে গোল দেওয়াটা আমার কাছে দারুণ একটা ব্যাপার। এই সব স্বপ্নের মুহূর্ত জীবনে ঘটানোর জন্য প্রচুর পরিশ্রম করতে হয়৷ আমার লক্ষ্য আরও অনেক দূর। এসব মুহূর্ত পাওয়ার জন্য, নিজেকে প্রস্তুত করতে হয়, যেটা আমি করছি। আন্তর্জাতিক ফুটবল প্রচণ্ড চাপের জায়গা। এখানে আশপাশে অনেক বড় বড় খেলোয়াড়। তাদের সঙ্গে মানিয়ে নিলে আপনার কাছে সাফল্য ধরা দেবেই!’

সত্যিই তো, ১৯ বছর বয়সে বিশ্বজেয়র স্বাদ কতজনের ভাগ্যে হয়!

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here