army news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: সেনা-জঙ্গি সংঘর্ষে ফের একবার উত্তপ্ত কাশ্মীর। উত্তর কাশ্মীরের সাপোরের হার্দশিবা গ্রামে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে এই এনকাউন্টার শুরু হয়েছে। ওই গ্রামে কিছু জঙ্গি জড়ো হয়েছে, গোপন সূত্রে এই খবর পেয়েই সেখানে যায় সেনা ও সিআরপিএফ যৌথ বাহিনী। কর্ডন এন্ড সার্চ অভিযান চলার সময়ই নিরাপত্তা বাহিনীর ওপর গুলিবৃষ্টি শুরু করে জঙ্গিরা। পাল্টা দিতে শুরু করে জওয়ানরাও। এখনও সেখানে গুলির লড়াই চলছে।

প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার একই দিনে দুইবার সেনা-জঙ্গি সংঘর্ষ হয় কাশ্মীরে। ওইদিন ভোরে জঙ্গি দমন অভিযানে গিয়ে শহিদ হন এক সিআরপিএফ জওয়ান। তবে, পাল্টা দুই জঙ্গিকে খতম করে ভারতীয় জওয়ানরাও। মঙ্গলবার ভোর ৫.৩০ নাগাদ ঘটনাটি ঘটে শ্রীনগর থেকে ৪৩ কিমি দূরে, পুলওয়ামা জেলায়।

সরকারি সূত্রে জানানো হয়, বান্দজু গ্রামে ভোরের বেলায় জঙ্গি দমন অভিযানে নামে পুলওয়ামা ডিস্ট্রিক্ট পুলিশ ও সিআরপিএফের ১৮২ ব্যাটালিয়নের জওয়ানরা। তল্লাশি অভিযান চলার সময় হঠাৎ করেই জঙ্গিরা ভারতীয় নিরাপত্তা বাহিনীর ওপর গুলিবর্ষণ শুরু করে। আহত হন এক সিআরপিএফ জওয়ান। তাঁকে দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে, পথেই শেষনিঃস্বাস ত্যাগ করেন তিনি। যদিও পাল্টা গুলিতে দুই জঙ্গিকে খতম করে ভারতীয় জওয়ানরা।

এরপর ওইদিন বেলাতেই ভারতীয় সেনার ২৮আরআর ও সিআরপিএফ জওয়ানরা লোলাব জঙ্গলে কর্ডন এন্ড সার্চ অপারেশন শুরু করে। কিন্তু ওই জঙ্গলে লুকিয়ে থাকা জঙ্গিরা হঠাৎই সেনার ওপর আক্রমণ করে। শুরু হয়ে যায় গুলির লড়াই।

উল্লেখ্য, এই বছরে জঙ্গিদের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি নিয়েছে ভারতীয় সেনা। শুধু জুন মাসেই এখনও পর্যন্ত ৩২ জনের বেশি জঙ্গি খতম করা হয়েছে। আর এই ছয় মাসে সংখ্যাটা ১০০-র বেশি। গত রবিবারই শ্রীনগরের জাদিবাল সৌরা এলাকায় তিন জঙ্গিকে একটি বাড়িতে ঘিরে ফেলেছিল ভারতীয় জওয়ানরা। দীর্ঘ গুলির লড়াইয়ের পর তিনজনকেই খতম করা হয়। গত সপ্তাহে আবার সোপিয়ান ও পাম্পরে দুটি আলাদা অভিযানে আটজন জঙ্গিকে নিকেশ করে ভারতীয় নিরাপত্তা বাহিনী। কুলগামে ১৯ জুন দুই হিজবুল জঙ্গিকেও মারে ভারতীয় জওয়ানরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here