kolkata bengali news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: জঙ্গিদের বিরুদ্ধে লাগাতার এনকাউন্টার অভিযান চলছে ভারতীয় সেনার। তবে সেই এনকাউন্টারের ভিড়েই এবার যে তথ্য প্রকাশ্যে এল তা রীতিমতো চাঞ্চল্যকর। গত জুলাই মাসে সোপিয়ানের সেনার গুলিতে মৃত্যু হয়েছিল তিন যুবকের। সম্প্রতি সেই ঘটনার তদন্তে নেমে তদন্তকারীদের দাবি সেনার গুলিতে মৃত ওই তিন যুবক রাজৌরি নিতান্ত শ্রমিক। কোনভাবেই তারা জঙ্গি নয়। সম্প্রতি ডিএনএ রিপোর্ট সেই তথ্য পেশ করছে। শুক্রবার জম্বু কাশ্মীর পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে, ডিএনএ রিপোর্ট অনুযায়ী ওই তিন যুবক হল ২০ বছর বয়সী আবরার, ২৫ বর্ষীয় ইমতিয়াজ এবং ১৭ বছর বয়সী ইব্রাম আহমেদ। এরা প্রত্যেকেই সম্পর্কে ভাই ও বিভিন্ন জায়গায় শ্রমিকের কাজ করে। সেনা জওয়ানরা এদের ‘জঙ্গি’ আখ্যা দিয়ে তাদের ভাঁড়ার ঘর থেকে তুলে নিয়ে যায়। এবং পরে হত্যা করা হয়।

ভারতীয় সেনার তদন্তে প্রথমেই ওই বিতর্কিত এনকাউন্টারের জন্য সেনা জওয়ানদের দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছিল। তদন্তে জানা গিয়েছে সেনা জওয়ানরা ‘আর্মড ফোর্সেস অ্যাক্ট’ অনুযায়ী পাওয়া নিজেদের অধিকার লংঘন করেছেন। AFSPA ১৯৯০ ধারা অনুযায়ী ক্ষমতার অপব্যবহার করেছেন। এবং সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ লঙ্ঘন করা হয়েছে। প্রসঙ্গত এনকাউন্টার এরপর ওই তিন যুবকের ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে যেতেই পরিস্থিতি গুরুতর হয়ে ওঠে। মৃতের পরিবারের তরফে জানানো হয় এরা জঙ্গি নয় এবং সম্পর্কে তারা একে অপরের ভাই। বিতর্ক শুরু হওয়ার পরই সেনা ও পুলিশের তরফে জানানো হয় যে গোটা ঘটনার তদন্ত করবে তারা।

এদিকে এ ঘটনার পর লাগাতার উপত্যকায় সেনা অভিযান নিয়ে কিছুটা হলেও প্রশ্ন উঠছে। যদিও যেভাবে উপত্যকায় জঙ্গি কার্যকলাপ বেড়েছে সেটাও কোনভাবে উপক্ষা করা যায় না। সাম্প্রতিক সময়ে প্রায় প্রতিদিন উপত্যাকার নানা প্রান্তে ঘটে চলেছে জঙ্গি কার্যকলাপ। শুক্রবার সকালে সেনার গুলিতে মৃত্যু হয়েছে দুই জঙ্গির। পাশাপাশি গত বৃহস্পতিবার উপত্যাকায় জঙ্গি হামলার জেরে শহিদ হয়েছেন ১ সিআরপিএফ জওয়ান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here