মহানগর ডেস্ক: গোটা দেশেই আছড়ে পড়েছে করোনা অতিমারির দ্বিতীয় ঢেউ। উত্তর প্রদেশও তার ব্যতিক্রম নয়। সম্প্রতি সবথেকে বেশি সংক্রমিত রাজ্যগুলোর মধ্যে অন্যতম উত্তর প্রদেশ। সেখানে চিকিৎসা পরিষেবা, অক্সিজেন ব্যবস্থা নিয়ে রয়েছে সন্দেহের অবকাশ। এসব কিছুর মধ্যেও মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ ভেবে চলেছেন গো-রক্ষা নিয়ে।

উত্তর প্রদেশের প্রত্যেক জেলায় গো-সহায়তা কেন্দ্র বা গো-শালা করার নির্দেশ দিয়েছেন যোগী আদিত্যনাথ। শুধু তাই নয়, গরুদের যাতে কোনও সমস্যা না হয় সে ব্যাপারটিও নিশ্চিত করতে চাইছেন তিনি। প্রত্যেক গো-শালায় মাক্স বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। থার্মাল চেকিং, পর্যাপ্ত ওষুধপত্রের যোগান, করোনা গাইডলাইনকে মান্যতা দেওয়ার কথা বলেছেন যোগী।

পরিসংখ্যান অনুযায়ী, ৫ হাজার ২৬৮ টি গো-রক্ষা কেন্দ্র রয়েছে উত্তর প্রদেশে। রাজ্যে বাছুর রয়েছে ৫ লক্ষ ৭৩ হাজার ৪১৭ টি। গ্রাম এবং শহর মিলিয়ে গরু রয়েছে ৪ লক্ষ ৬৪ হাজার ৩১১। অস্থায়ী ছাউনি করা হয়েছে  ৪ হাজার ৫২৯ টি।

উত্তর প্রদেশে অতিমারির পরিস্থিতি একেবারেই সুখকর নয়। সেখানে এখন চলছে লকডাউন। আগামী ১০ মে সকাল ৭ টা পর্যন্ত লকডাউনের মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে।  এর আগে রাজ্য সরকার জানিয়েছিল, সংক্রমণ বৃদ্ধির জন্য ৪ মে সকাল ৭ টা পর্যন্ত লকডাউন জারি থাকবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here