kolkata bengali news

নিজস্ব প্রতিবেদক, হাওড়া পকেটে: থাকা টাকা রোজই চুরি হচ্ছিল। ধরা যাচ্ছিল না চোর। গোপনে সিসিটিভি লাগাতেই ধরা পড়ল চোর। পাকা নয়, নবীশ ওই চোর ব্যসে কিশোর। ষষ্ঠ শ্রেণির ওই ছাত্র দীর্ঘদিন ধরেই প্রতিবেশী বাবলু সাঁতরা নামে কাকুর ঘর থেকে তাঁর ব্যবসার টাকাপয়সা হাতসাফাই করছিল। তাঁর এলআইসি-র কালেকশন এর টাকা রোজই চুরি হচ্ছিল। প্রথম দিকে চুরির পরিমাণ কম হলেও পরে ক্রমে সেই চুরির পরিমাণ বাড়তে শুরু করে।

কিন্তু কিছুতেই ধরা যাচ্ছিল না চোর। শেষমেশ পরিবারের লোকেদের মতামত নিয়ে বাড়িতে গোপনে সিসিটিভি ক্যামেরা ইনস্টল করে নেন হাওড়ার লিলুয়ার বাসিন্দা ওই এলআইসি এজেন্ট। এরপরই বাবলুবাবুর ঘর থেকে টাকা চোর ধরা পড়ে। দেখা যায়, প্রতিবেশী এক কিশোর ঘরে ঢুকে প্যান্টের পকেট থেকে হাতিয়ে নিয়ে যাচ্ছে গোছা গোছা টাকা। শুক্রবার হাতেনাতে ধরা পড়েছে ওই কিশোর। জেরায় সে স্বীকার করেছে তার অপরাধের কথা। চামরাইল হাইস্কুলের ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র ওই কিশোরের দাবি, তাকে রোজ টাকা চুরি করে আনতে বলেছিল পাশের বাড়ির আর এক কাকু। তার কথামতোই সে বাবলুকাকুর কালেকশন-এর টাকা হাতসাফাই করত। এরজন্য তাকে মোবাইল ফোন, হাত খরচের টাকা দেওয়া হয়েছিল।

এই ঘটনায় লিলুয়ায় মাঝেরহাট এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। এদিকে গত কয়েক মাসে কয়েক হাজার টাকা খুইয়ে এখন মাথায় হাত বাবলুবাবুর। তিনি বিষয়টি লিলুয়া থানায় জানিয়েছেন। তবে এখনও কিশোরের নামে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেননি। বাবলুবাবু জানান, ওই কিশোরকে দিয়ে যারা এই কাজ করাত তাদের চিহ্নিত করে পুলিশ শাস্তি দিক। ধরা পড়ে ওই কিশোর দাবি করেছে, সে এই কাজ না করলে ও কাউকে জানালে তাকে প্রাণনাশের হুমকি দেওয়া হয়েছিল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here