ডেস্ক: ভোট মরসুমে সদ্য কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন তিনি। আর দলবদল সেরেই ইউপিএ চেয়ারপার্সন সোনিয়া গান্ধীকে নজিরবিহীন আক্রমণে নামলেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী এস কৃষ্ণ কুমার। ‘চৌকিদার চোর হ্যা’ স্লোগান তুলে একদিকে যখন রাহুল গান্ধী সর্বশক্তি দিয়ে নরেন্দ্র মোদীকে পরাস্ত করতে উঠেপড়ে লেগেছেন। তখনই দলত্যাগী এই নেতার মন্তব্যে কংগ্রেসের অন্দরে অস্বস্তি বাড়বে বলেই ধারনা রাজনৈতিক মহলের। কারণ বিজেপিতে যোগ দিয়েই তিনি বলেছেন, ‘দেশের প্রতি কোনও ভালোবাসাই সোনিয়া গান্ধীর’।

সপ্তাহান্তে এই নিয়ে পরপর দুটি বড় ধাক্কা খেল কংগ্রেস। প্রথমে দল ছেড়ে শিবসেনায় যোগ দিয়েছিলেন মুখপাত্র প্রিয়াঙ্কা চতুর্বেদী। শনিবার প্রাক্তন এই কংগ্রেস নেতা বিজেপির সদর দফতরে শাহেনাওয়াজ হোসেনের উপস্থিতিতে যোগ দেন বিজেপিতে। এরপরই তোপ দাগেন, সোনিয়া গান্ধী ভারতের ঐতিহ্যকে বোঝেন না। রাহুলকেও নিশানায় নিয়ে তিনি বলেন, অনেকেই রাহুল গান্ধীর নেতৃত্ব মেনে নিতে পারছেন না। নরেন্দ্র মোদীর প্রশংসায় পঞ্চমুখ হয়ে এস কৃষ্ণ কুমারের বক্তব্য, ‘আমি আমার শেষ জীবন নরেন্দ্র মোদীর সৈনিক হয়ে থাকতে চাই। মাত্র পাঁচ বছরের কাজ দেখে মোদীজির বিচার করা ঠিক হবে না। কমপক্ষে দশ বছর সময় দেওয়া উচিত ওনাকে।’

ওদিকে কংগ্রেস ছেড়ে এসে রাহুল-সোনিয়াকে কটাক্ষ করার কোনও পথই বাকি রাখছেন না বরিষ্ঠ এই নেতা। এস কৃষ্ণ কুমার বলেন, আমি তিনবার কংগ্রেসের সাংসদ হয়েছে। কিন্তু আমি সোনিয়া গান্ধীর নেতৃত্বের বিরোধিতা করতাম। এখন রাহুল গান্ধীর নেতৃত্বের বিরোধিতা করি। আমি রাজীব গান্ধীর ঘনিষ্ঠ ছিলাম।’ ইউপিএ চেয়ারপার্সন সোনিয়াকে নিশানায় নিয়ে তিনি বলেন, ‘ভারতীয় সংস্কৃতির সম্পর্কে ওঁর কোনও ধারনাই নেই। দেশের প্রতি প্রকৃত ভালোবাসাই নেই। আমি সর্বদা ওঁর থেকে দুরেই থাকতাম। কারণ কেবল দুর্নীতিগ্রস্তরাই ওকে ঘিরে ধরে থাকেন।’

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here