ডেস্ক: দীর্ঘদিন প্রমাণ সহ অভিযোগ থাকলেও বারবারই অস্বীকার করে এসেছিল ইসলামাবাদ। রাজনৈতিকভাবে কোণঠাসা পাকিস্তানের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ এবার স্বীকার করেই নিলেন, মুম্বই হামলায় হাত ছিল পাকিস্তানেরই। তাঁর এই স্বীকারোক্তির ফলে পাকিস্তানের ‘ধোয়া তুলসী পাতা’ হওয়ার দাবিও কার্যত নস্যাৎ হয়ে গেল। শুক্রবার এক সাক্ষাতকারে তিনি স্বীকার করে নেন যে সেদেশে জঙ্গি সংগঠনগুলি সক্রিয় অবস্থায় রয়েছে।

কেবল স্বীকারোক্তি করেই চুপ থাকেন নি নওয়াজ। দীর্ঘকাল ধরে মুম্বই হামলার শুনানি পাক আদালতে স্থগিত অবস্থায় থাকা নিয়েও একহাত নিয়েছে তিনি। পাকিস্তানের প্রথম সারির সংবাদ পত্র ‘দ্য ডন’-কে দেওয়া সাক্ষাতকারে নওয়াজ বলেন, ‘সমান্তরালভাবে দুই অথবা তিনটি সরকার চললে দেশ চালানো কখনই সম্ভব না।’ মুখে না বললেও পাকিস্তানের ছত্রছায়ায় থাকা সন্ত্রাসবাদী সংগঠনগুলিকে নিশানায় নিয়েই যে তিনি এ কথা বলেন তা জলের মতোই স্বচ্ছ।

এই সাক্ষাতকারে বিস্ফোরক মন্তনব্য করে পূর্ব পাক প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘সক্রিয় জঙ্গি সংগঠনগুলিকে আমরা কীভাবে সীমান্ত পেরিয়ে ১৫০ মানুষকে হত্যা করার নির্দেশ দিতে পারি? আমাদের শুনানি হতেও এত সময় লাগছে কেন?’ নওয়াজের এই বিস্ফোরণ বয়ানে পাক সরকারের উপর যে চাপ বাড়বে তা আলাদা করে বলার প্রয়োজন পড়েনা। কিন্তু রাজনৈতিকভাবে তিনি এখন অথর্ব ভূমিকা পালন করায় তাঁর মন্তব্যকে পাক সরকার আদৌ গুরুত্ব দেবে কিনা এই নিয়েও প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here