মহানগর ওয়েবডেস্ক: গালোয়ান সংঘর্ষের পর চিনের সঙ্গে পাল্টা সামরিক সংঘাতের পথে হাঁটেনি ভারত। কিন্তু পুলওয়ামায় পাকিস্তানি জঙ্গিদের হামলার পর ভারতের জবাব ছিল অন্যরকম। এয়ারস্ট্রাইক করে পাক অধিকৃত কাশ্মীরের বালাকোট ঘাঁটিতে একাধিক জঙ্গি প্রশিক্ষণ শিবির গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়েছিল। ভারতের এই প্রত্যুত্তর একেবারে সঠিক ছিল বলে জানিয়েছেন আমেরিকার প্রাক্তন নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টন।

প্রথম সারির ভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছেন, বালাকোট এয়ার স্ট্রাইকের পুরো অধ্যায়টা ভারত যেভাবে সামলে ছিল তা প্রশংসনীয়। মার্কিন জাতীয়‌ নিরাপত্তা উপদেষ্টার পদ থেকে অবসর নেওয়ার পর তিনি একটি বই লিখেছেন। যেখানে আমেরিকার বিগত কয়েক বছরের ইতিহাসে ঘটে যাওয়া প্রচুর সংবেদনশীল এবং গোপনীয় তথ্য তিনি প্রকাশ করেছেন। সেই বইতে উল্লেখ রয়েছে, পাক অধিকৃত কাশ্মীরের ওপর ভারতের এয়ার স্ট্রাইকের কথাও। জন বোল্টন জানিয়েছেন, কঠিন পরিস্থিতিতে ভারতের পাল্টা জবাব ছিল সংযম এবং ভারসাম্য যুক্ত। যদিও সেই এয়ারস্ট্রাইক সম্পর্কে খুব একটা বিশদে লেখেননি বোল্টন।

যখন তাঁকে জিজ্ঞেস করা হয় কেন? বোল্টন জানান, সেই সময়ে উত্তর কোরিয়ার শাসক কিম জং উন এর সঙ্গে দেখা করতে যাচ্ছিলেন মার্কিন রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্প। সেই কারণে বালাকোট এয়ার স্ট্রাইক নিয়ে বিশেষ মন দিতে পারেননি তারা। এয়ার স্ট্রাইক নিয়ে কথা বলতে গিয়ে তিনি বলেন, ভারতের জন্য এটা অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ একটা সামরিক অপারেশন ছিল। বিষয়টি নিয়ে ভারত ও আমেরিকার মধ্যে কথা হয়েছিল। আমাদের দুই দেশের জন্যই সন্ত্রাসবাদ একটা বড় ভয়ের কারণ‌। নিজেদের মধ্যে বহু সমস্যার সমাধান বাকি রইলেও সন্ত্রাসবাদ দমনে আমরা সর্বদা একে অন্যের পাশে রয়েছি।

বালাকোট এয়ার স্ট্রাইক পাকিস্তানের উস্কানির কারণে ছিল বলেও মেনে নিয়েছেন জন বোল্টন। এয়ার স্ট্রাইকের পরে আমেরিকার সঙ্গে ভারতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টার অজিত ডোভালের আলোচনা হয়েছিল বলেও স্বীকার করে নেন তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here