ডেস্ক: লোকসভা ভোটের আগে পাঁচ রাজ্যের বিধানসভা ভোট সব রাজনৈতিক দলের কাছে ফাইনালের আগে নেট প্র্যাকটিসের মত। সেই বিধানসভা ভোটের আগে যবনিকা পতন হয়েছে। মধ্যপ্রদেশ, ছত্তিশগড়, মিজোরামের ভোটপর্বের পর আজ ছিল রাজস্থান ও তেলেঙ্গানার নির্বাচন। দুই রাজ্যের নির্বাচন নিয়ে ছিল চরম কৌতুহল। রাজস্থানে বসুন্ধরা রাজের সরকার নিয়ে সমস্যা থাকায় ভোটপর্বের আগে বিজেপির তুলনায় কংগ্রেসকে কিছুটা হলেও এগিয়ে রাখা হচ্ছিল। অন্যদিকে তেলেঙ্গানার ছবিটা ঠিক উল্টো। বিজেপি বা কংগ্রেস নয় সেখানে নির্বাচনী আবহাওয়া সরগরম করেছেন তেলেঙ্গানা রাষ্ট্রীয় সমিতির প্রধান তথা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রশেখর রাও। তিনি বলেই দিয়েছিলেন, বিজেপি-কংগ্রেস কোনও দলেই তিনি নেই, তিনি ভিখারি নন, যোদ্ধা। তাই এই রাজ্যের ফলের দিকেও তাকিয়ে গোটা দেশ।

রাজস্থান: পাঁচ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনের অন্যতম চর্চিত ছিল রাজস্থানের নির্বাচন। বিজেপির বসুন্ধরা রাজের সরকার নিয়ে বিস্তর সমস্যার চিত্র সংবাদ শিরোনামে এসেছে বারংবার। রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী বসুন্ধরা রাজকে নিয়ে বিজেপির অন্দরের সমস্যা থেকে তৈরি হওয়া ‘সুবিধা’র সিংহভাগই রাহুল গান্ধীর ঝুলিতে যাবে, এমন ধারণাও আগে পাওয়া গেছে। কংগ্রেসের পক্ষে রাজস্থান যে একটা সুখবর দেবে তাও হয়তো অনেক আগে থেকেই আলোচনা হয়েছে রাজনৈতিক মহলে। আজ বিধানসভা নির্বাচনের শেষে বুথ ফেরৎ সমীক্ষাও কিন্তু সেই দিকেই ইঙ্গিত দিচ্ছে। টাইমস নাও-সিএনএক্স-এর বুথ ফেরৎ সমীক্ষা অনুযায়ী, ১৯৯ টি আসনের মধ্যে রাজস্থানে বিজেপি পেতে চলেছে ৮৫ টি আসন। কংগ্রেস পেতে চলেছে ১০৫ টি আসন। মায়াবতীর বিএসপি পেতে পারে ২ টি আসন। অন্যান্যরা ৭ টি। সুতরাং সমীক্ষার দিকে নজর দিলে পরিস্কার বোঝা যাবে বিজেপির আভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্বের ফায়দা পুরোটাই নিতে পেরেছে কংগ্রেস।

তেলেঙ্গানা: বিজেপি ও কংগ্রেসকে প্রায় একইভাবেই তোপ দেগে গেছেন তেলেঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রশেখর রাও বা কেসিআর। একদিকে যেমন নরেন্দ্র মোদীর তোপের মুখে পড়তে হয়েছে তাঁকে, তেমনই রাহুল গান্ধীর কটাক্ষের শিকারও হয়েছেন তিনি। এই নির্বাচনের পরিপ্রেক্ষিতে তেলেঙ্গানাই এমন রাজ্য যেখানে বিজেপি-কংগ্রেস কেউই দাঁত ফোটাতে পারে নি। সর্বশক্তি নিয়ে উঠে এসেছে আঞ্চলিক দল তেলেঙ্গানা রাষ্ট্রীয় সমিতি বা টিআরএস। চন্দ্রশেখর রাও আগেই বলেছিলেন যে এই রাজ্যে তিনিই আসছেন তাতে কোনও সন্দেহ নেই। নির্বাচনের শেষে বুথ ফেরৎ সমীক্ষাও তাঁর কথাই যেন শুনেছে। টাইমস নাও-সিএনএক্স-এর বুথ ফেরৎ সমীক্ষা অনুযায়ী, ১১৯ টি আসনের মধ্যে তেলেঙ্গানায় টিআরএস পেতে চলেছে ৬৬ টি আসন। কংগ্রেস পেতে পারে ৩৭ টি আসন। তবে ব্যাপকভাবে কোনঠাসা হতে চলেছে বিজেপি। গেরুয়া শিবিরের কপালে জুটতে চলেছে মাত্র ৭ টি আসন। আসাদউদ্দিন ওয়েইসির এআইআমআইএম পেতে পারে ৯ টি আসন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here