ডেস্ক: পরকীয়া এবার থেকে অপরাধের নয়, বৃহস্পতিবার এমনই রায় ঘোষণা করল শীর্ষ আদালত। এদিন পরকীয়া সংক্রান্ত মামলাকে একেবারে খারিজ করে দিল আদালত। প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্রের নেতৃত্বে পাঁচ বিচারপতির একটি ডিভিশন বেশ এই রায় দেয়। সংবিধানের ৪৯৭ ধারার অন্তর্গত এই মামলার রায়ে বিচারপতিরা জানান যে, পরকীয়া মামলা ফৌজদারি অপরাধ নয়। আদালত স্পষ্টভাবে জানিয়ে দেয়, যদি দু’জন প্রাপ্ত বয়স্ক মানুষের মধ্যে পূর্ণ সম্মতিতে শারীরিক সম্পর্ক হয় তবে তা কোনওভাবেই সামাজিক অপরাধের আওতায় পড়ে না। ফলে কোনও ফৌজদারি মামলাও হবে না।

এদিন আদালত রায় ঘোষণা করে জানায়, কোনও পরকীয়া ঘটিত কারণে স্বামী স্ত্রী কে দোষারোপ করে বা অভিযুক্ত করে শাস্তি দিতে পারবেন না। তবে অবশ্য এও জানিয়ে দেওয়া হয় যে, বিবাহিত জিবনের মানে এই নয় যে যত পারবে স্বেচ্ছাচারিতা করে বেড়াবে। প্রত্যেক মানুষেরই স্বাধীনভাবে জীবনযাপন করার সম্পূর্ণ অধিকার রয়েছে। ১৮৬০ সালে তৈরি হওয়া এই আইনে বলা হয় যে, কোনও ব্যক্তি যদি কোনও মহিলার সম্পর্কে লিপ্ত হয় এবং এই ঘটনায় স্বামীর অনুমতি না থাকে তাহলে পাঁচ বছর অবধি জেল এবং জরিমানা বা উভয়ই হতে পারে। এই আইনকেই চ্যালেঞ্জ করে একাধিক মামলা দায়ের হয় আদালতে। বর্তমান পরিস্থিতিতে এই আইন বাতিল করা হক এই দাবিতে বহু মামলা জমা পরে আদালতে। দাবি ছিল যে আইন বাতিল করা হোক। একি অপরাধে মহিলাদেরও শাস্তি দেওয়া হোক এই দাবিও করা হয়। এদিন এই মামলাতেই আদালত ঐতিহাসিক রায় ঘোষণা করে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here